রাজশাহীতে এবার নিকটস্থ মসজিদে ঈদের নামাজ

রাজশাহী

করোনা ভাইরাসের মহামারির মধ্যে এবার ঈদুল ফিতরের দিন ঈদগাহ বা খোলা জায়গার বদলে বাড়ির কাছে মসজিদে ঈদের নামাজ পড়তে নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। সেসঙ্গে মসজিদে ঈদ জামাত আয়োজনের ক্ষেত্রে সুরক্ষার ব্যবস্থা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বেশকিছু শর্ত দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

এবার ঈদে সে নির্দেশনা রাজশাহী মহানগরেও বাস্তবায়ন হবে বলে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরএমপি)।

বিজ্ঞপ্তিতে ঈদগাহ বা খোলা জায়গার পরিবর্তে আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজের জামাত নিকটস্থ মসজিদে আদায় করতে হবে বলে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রেও সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ মে) দুপুরে আরএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, মুসুল্লিদের জীবন ঝুঁকি বিবেচনা করে এ বছর পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাত ঈদগাহ বা খোলা জায়গার পরিবর্তে নিকটস্থ মসজিদে আদায়, মুসুল্লিদের মাস্ক পরিধান, কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে শারীরিক দূরুত্ব বজায় ও এক কাতার অন্তর দাঁড়ানো, জামাত শেষে কোলাকুলি ও হাত মেলোনা পরিহার ইত্যাদি বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয় বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সে নির্দেশনা রাজশাহী নগরেও বাস্তবায়ন করা হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ করা হয়, জনস্বাস্থ্য ঝুঁকি বিবেচনায় উল্লিখিত সরকারি নির্দেশনাসমূহ প্রতিপালনসহ আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন উপলক্ষে ঈদের দিন থেকে পরের দিন পর্যন্ত রাজশাহী মহানগর এলাকার শান্তি, শৃঙ্খলা রক্ষার নিমিত্ত রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ আইন-১৯৯২ এর ২৬ (ঢ), ২৯ (ক), ২৯ (খ) ধারায় অর্পিত ক্ষমতাবলে রাজশাহী মহানগর এলাকায় আতশবাজি, পটকা ফুটানোসহ অন্য ক্ষতিকারক দ্রব্য বিক্রি/ব্যবহার, হিংসাত্মকভাবে আঘাত করার উদ্দেশে অস্ত্র-শস্ত্র, তলোয়ার, বর্শা, বন্দুক, ছোরা বা লাঠি ও বিস্ফোরক দ্রব্য বহন ও জায়নামাজ ছাড়া কোনো ব্যাগ, ভারী বস্তু বা অন্য কোনো দ্রব্যাদি বহন নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজ