রাজশাহীতে ‘কিরণমালা’ দেখতে গিয়ে প্রাণ গেল কিশোরীর

গোদাগাড়ী রাজশাহী

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে স্টার জলসার সিরিয়াল কিরণমালা দেখায় জন্য বড় বোনের ধাওয়া খেয়ে ছোট বোনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার মাটিকাটা ইউনিয়ের আঁচুয়া কসাইপাড়া গ্রামের এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কিশোরীর নাম তানজিলা খাতুন (১২)। সে আঁচুয়া কসাইপাড়া গ্রামের জেনারুল ইসলামের মেয়ে। এ ঘটনায় বড় বোন শিল্পী খাতুন শান্তাকে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ।

পরে দুপুরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। মৃত কিশোরীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

গোদাগাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) আবদুর রাজ্জাক জানান, বেশ কিছু দিন আগে তানজিলার মা মাদক মামলায় গ্রেফতার হন। এরপর থেকে কিশোরী তানজিলা আঁচুয়া কসাইপাড়া গ্রামে তার দুলাভাই, হারুন বাবু-শান্তা দম্পতির বাড়িতে থাকতো।

বুধবার সকালে ওই কিশোরী পাশের বাড়িতে ভারতীয় টিভি সিরিয়াল কিরণমালা দেখছিলো। ওই সময় তার বড় বোন শিল্পী খাতুন শান্তা (২০) সাংসারিক কাজে ব্যস্ত ছিলেন। কিন্তু তার শিশু সন্তান কান্নাকাটি করছিলো। এ সময় তানজিলা বাড়িতে না থাকায় শিল্পী তার ওপর ক্ষিপ্ত হন।

পরে তিনি পাশের বাড়ি গিয়ে ছোট বোন তানজিলাকে মারপিট শুরু করেন। মারপিট থেকে রক্ষা পেতে তানজিলা তার কাছ থেকে পালানোর চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে বড় বোনের ধাওয়া খেয়ে ইটের ওপর পড়ে যায় তানজিলা। এতে বুকে মারাত্মক আঘাত পায় সে। পরে তাকে দ্রুত উদ্ধার করে গোদাগাড়ী হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আবদুর রাজ্জাক আরও জানান, ঘটনার পর ওই কিশোরীর বড় বোন শিল্পী খাতুন শান্তাকে আটক করা হয়। তবে দুপুরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। কিশোরীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তানজিলা খাতুনের মরদেহর ময়নাতদন্ত করার পর তা পরিবারের সদস্যদের কাছে ফেরত দেওয়া হবে। আপাতত এ ঘটনায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

খবরঃ বাংলানিউজ

8 thoughts on “রাজশাহীতে ‘কিরণমালা’ দেখতে গিয়ে প্রাণ গেল কিশোরীর

  1. আমাদের উচিৎ রাজশাহী বিভাগ থেকে স্টার জলসা এবং জি বাংলা চেনেল বন্ধ করা। পারলে কেবল অপারেটরদের ধোলাই করা।

Comments are closed.