রাজশাহীতে খুন-ডাকাতির প্রতিবাদে মানববন্ধন-বিক্ষোভ

রাজশাহী

জেলা আওয়ামী লীগ নেতা জিয়াউল হক টুকু, রাবি শিক্ষক রেজাউল করিম সিদ্দিকী খুন ও এম রায় জুয়েলারিতে ডাকাতির প্রতিবাদে রাজশাহীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন বিভিন্ন পেশাজীবীরা।

রাজশাহী মহানগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে সোমবার (০২ মে) বেলা ১১টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে রাজশাহীর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

একইসঙ্গে অবিলম্বে চেম্বারের সাবেক প্রশাসক জিয়াউল হক টুকু, রাবির অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে হত্যা ও ডাকাতির সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়।

রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা, আইন সহায়তা কেন্দ্র রাজশাহী মহানগর কমিটির যৌথ উদ্যোগে কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা রাজশাহীর নাজুক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে বলেন, শান্তির শহর রাজশাহীতে শান্তি ফিরিয়ে আনতে পুলিশকে কাজ করতে হবে। পুলিশ অপরাধীদের না ধরে সাধারণ মানুষকে নানাভাবে হয়রানির কারণেই রাজশাহীর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নাজুক অবস্থায় পরিণত হয়েছে বলেও অভিযোগ করা হয়।

বক্তারা বলেন, জিয়াউল হক টুকুকে তার নিজ চেম্বারে গুলি করে হত্যা করে অপরাধীরা নির্বিঘ্নে চলে গেলো। কিন্তু পুলিশ হত্যাকারীদের আজো খুঁজে পায়নি। তার হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনতে হবে। এটি না হলে অপরাধীদের হাত আরও লম্বা হয়ে যাবে। রাজশাহীর পরিস্থিতি আরও ভয়ঙ্কর হবে।

মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি লিয়াকত আলী, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, রাজশাহী মহানগর ওয়াকার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ প্রামাণিক দেবু, আওয়ামী লীগ নেতা মঞ্জুর হাসান মিঠু, কৃষকলীগ নেতা রবিউল ইসলাম বাবু, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহফুজুল আলম লোটন, মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী বরজাহান, সাংবাদিক হাসান মিল্লাত ও সাম্যবাদীদলের মাসুদ রানা প্রমুখ।

এছাড়া কর্মসূচিতে মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতকর্মী, ব্যবসায়ী, ছাত্র ছাড়াও নারী সংগঠনের নেতাকর্মী ও পেশাজীবীরা অংশ নেন।

গত ২৪ এপ্রিল নিজ চেম্বারে খুন হন রাজশাহী চেম্বারের সাবেক প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক জিয়াউল হক টুকু। এর আগের দিন মহানগরীতে নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকী। আর সবশেষ গত বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) মহানগরীর গণকপাড়া মোড়ে জুয়েলারি শোরুমে ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

খবরঃ বাংলানিউজ

2 thoughts on “রাজশাহীতে খুন-ডাকাতির প্রতিবাদে মানববন্ধন-বিক্ষোভ

Comments are closed.