রাজশাহীতে গৃহবধূ নির্যাতন মামলায় শ্বশুর-শাশুড়িসহ চারজন কারাগারে

রাজশাহী

রাজশাহীতে গৃহবধূ রিফাহ তাসফিয়া সালমা নির্যাতন মামলায় তার শ্বশুর, শাশুড়ি ও দুই ভাসুরের জামিন বাতিল করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (০৯ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে রাজশাহীর অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক এ নির্দেশ দেন।

এরা হলেন- রিফাহ তাসফিয়ার শ্বশুর ফজলুল হক (৫৬), শাশুড়ি জাহানারা বেগম সুজি (৫০) এবং ভাসুর ফয়সাল (৩০) ও সজীব (২৮)। তারা মামলা দায়েরের পর আদালত থেকে গত ২১ জুলাই জামিন নিয়েছিলেন।

মামলার পাঁচ আসামির মধ্যে প্রধান আসামি অর্থাৎ তাসফিয়ার স্বামী শামিউল হক সোয়াদকে ঘটনার পরই গ্রেফতার করে পুলিশ। বর্তমানে তিনি কারাগারে বন্দি আছেন।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে মামলার ধার্য তারিখে আসামিরা আদালতে হাজির হন। এ সময় বাদী পক্ষের আইনজীবী তাদের জামিন বাতিলের আবেদন জানান। পরে এ নিয়ে শুনানি শেষে রাজশাহীর অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন আদালতের বিচারক মো. জুলফিকার উল্লাহ এ আদেশ দেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মুন্না সাহা জানান, দুপুরে তিনি আদালতে আসামিদের জামিন বাতিলের জন্য আবেদন করেন। এ সময় আসামিপক্ষের আইনজীবী মোজাম্মেল হক এর বিরোধিতা করেন। কিন্তু শুনানি শেষে তাদের জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

এর আগে গত ১১ জুলাই মহানগরীর ডিঙ্গাডোবা এলাকায় যৌতুকের দাবিতে লাঠি, লোহার রড ও পাইপ দিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে তাসফিয়ার হাত-পা ভেঙে দেয় তার স্বামীসহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

এ ঘটনায় তাসফিয়ার মা হোসনে আরা পারভীন বাদী হয়ে পাঁচজনকে আসামি করে রাজপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর সোহাগকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সে সময় অন্য চার আসামি আদালত থেকে জামিন নিয়েছিলেন।

খবরঃ বাংলানিউজ