রাজশাহীতে ঘুড়ি ওড়াতে গিয়ে উড়ে গেল প্রাণপাখি

রাজশাহী

রাজশাহী নগরীতে গাছে আটকে থাকা ঘুড়ি নামাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছে জাহিদ হোসেন (১২) নামের এক কিশোর। শনিবার বিকেল ৫টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়ার পর
তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

মৃত জাহিদ নগরীর চন্দ্রিমা থানার মুশরাইল এলাকার আকতার হোসেনের ছেলে। এর আগে নগরীর শাহমখদুম থানা পুলিশ নগরীর বনলতা আবাসিক এলাকার একটি শালগাছ থেকে তার অচেতন দেহ উদ্ধার করে। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ।

রামেক হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ এসআই রফিকুল ইসলাম বলেন, বিকেল ৫টার দিকে ওই কিশোরকে রামেক হাসপাতালে নেয় পুলিশ। জরুরি বিভাগ থেকে তখনই তাকে ৩২ নম্বর ওয়ার্ডে পাঠনো হয়। সেখানকার দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে মরদেহ হাসপাতাল মর্গে নেয়া হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নগরীর শাহমখদুম থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, বিকেলে এলাকায় ঘুড়ি ওড়াচ্ছিল ওই কিশোর। ওই সময় সুতো কেটে উড়ে যায় ঘুড়িটি। ওই কিশোর ঘুড়ির পিছু নিয়ে আরডিএ ভবনের পেছনের বনলতা আবাসিক এলাকায় চলে আসে। সেখানকার একটি উঁচু শালগাছে ঘুড়িটি আটকে যায়। পরে সেই ঘুড়ি নামাতে ওই কিশোর গাছে উঠে পড়ে। কিন্তু পাশ দিয়ে যাওয়া বিদ্যুতের সঞ্চালন লাইনে গাছের ডাল স্পর্শ করলে স্পৃষ্ট হয় কিশোর।

তাকে গাছের ডালে ঝুলে থাকতে দেখে থানায় খবর দেন স্থানীয়রা। পরে পুলিশ গিয়ে ওই কিশোরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়। এনিয়ে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান ওসি।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪