রাজশাহীতে দুম্বার মাংস না পাওয়ায় হুমকি

রাজশাহী

নগরীতে দুম্বার মাংস বিতরণের দায়ীত্বে থাকা এসপিজিআরসি নেতৃবৃন্দের প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় নামধারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে। নগরীর শিরোইল কলোনীর নামধারী সন্ত্রাসী উজ্জল, জামিল, হান্নান, ভুলুসহ আরো বেশ কিছু স্থানীয় সন্ত্রাসীরা এসপিজিআরসি নেতৃবৃন্দের এ হুমকি দিচ্ছে। এসপিজিআরসি সভাপতি সাহাবুদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক রফিউল্লাহ আনসারী, সহ-সভাপতি মমতাজ খাঁনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা জানান, দুম্বার মাংস ওই সব সন্ত্রাসী এবং তাদের পছন্দমত ব্যক্তিদের না দেয়ায় বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়ারও মত হুমকি দিচ্ছে। সব সময় তারা আক্রমনাত্বক কথাবার্তা এবং মারমুখি আচরণ করছে। যে কোন সময় ওই সব সন্ত্রাসীরা তাদের এবং পরিবারের উপর হামলা করতে পারে এই আশঙ্কা রয়েছে বলে জানান তারা। অথচ দুম্বার মাংস পাওয়ার একমাত্র অধিকার রয়েছে এসপিজিআরসির কার্ডধারী সদস্যদের। ওই সব সন্ত্রাসীরা এসপিজিআরসির কোন সদস্য এবং দু:স্থ ব্যক্তিও না। তারা আরো জানান, একটি কুচক্রিমহল এই এসপিজিআরসির মত স্বচ্ছ সংগঠনের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য সব সময় ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হচ্ছে।

এদিকে রাজশাহীতে দুম্বার মাংস বিতরণে অনিয়ম শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছে রাজশাহী এসপিজিআরসি সভাপতি সাহাবুদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক রফিউল্লাহ আনসারী, সহ-সভাপতি মমতাজ খাঁনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। প্রতিবাদে বলা হয়, তাদের ব্যক্তিগত ও উক্ত সংগঠনের মান ক্ষুন্ন করার জন্য এই সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে। এই সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন।

প্রতিবাদে আরো বলা হয়, গত ৪ জানুয়ারী বিকেলে ৫টার সময় নগরীর মিলন কোল্ড স্টোরেজ ও জেলা প্রশাসক দফতরের কর্মকর্তা ও ইসলামী ব্যাংক রাজশাহী শাখার কর্মকর্তার উপস্থিতিতে ২৪০ কার্টুন মাংস গ্রহণ করে শহর শাখা সাগরপাড়াতে ৮০ কার্টুন মাংস প্রদান করা হয় এবং শিরোইল কলোনী ও নিউ কলোনীর জন্য ১৬০ কার্টুন দুম্বার মাংস গ্রহণ করা হয়। পরে তারা দেখেন মাংসগুলোর প্যাকেট ছেঁড়া ও ওজনে অনেক কম। ওজনে ৪২৬ কেজি হয়। এমনকি প্রতিটি উপজেলাগুলোতেও কম থাকার প্রমাণ রয়েছে। যেহেতু উপজেলার মাংস কম রাজশাহী এসপিজিআরসির ৮০০ পরিবারের জন্য ৮০০ কার্ড রয়েছে। প্রতিটি পরিবারের জন্য ৫০০ গ্রাম, বাকী মাংস দু:স্থদের মাঝে সুষ্ঠুভাবে বিতরণ কর হয় এবং মাংস বিতরণে কোন প্রকার টাকা নেয়া হয় নি। তবে অফিস ঘর নির্মান ও সংগঠনের অনুদান পরিচালনার স্বার্থে বছরে ৩০ থেকে ৫০ টাকা সকল সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে এককালীন অনুদান নেয়া হয়।

খবরঃ দৈনিক সানশাইন

1 thought on “রাজশাহীতে দুম্বার মাংস না পাওয়ায় হুমকি

Comments are closed.