রাজশাহীতে পণ্যের সংকট তৈরি করলেই ব্যবস্থা

রাজশাহী

করানোভাইরাস আতঙ্কের মধ্যে রাজশাহীতে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য মজুদ করে বাজারে সংকট তৈরি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) বিকেলে বিভাগীয় পর্যায়ে জরুরি সভায় মুনাফালোভী ব্যবসায়ীদের হুঁশিয়ারি করে এ কথা জানানো হয়েছে। বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জরুরি সভায় বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বিভাগীয় কমিশনার মো. হুমায়ুন কবির খোন্দকারের সভাপতিত্বে সভায় করোনার কারণে আতঙ্ক সৃষ্টি হওয়ায় অহেতুক নিত্যপণ্যের দাম যেন বৃদ্ধি না পায়, ব্যবসায়ীরা যেন অতিরিক্ত পণ্যের মজুত না করেন এবং জনগণের মাঝে যেন অতিরিক্ত পণ্য ক্রয়ের প্রবণতা তৈরি না হয়- এসব বিষয়ে আলোচনা হয়।

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, বর্তমানে দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। রাজশাহী বিভাগে বর্তমানে তিন লাখ ৭৫ হাজার মেট্রিকটন খাদ্যশস্য মজুত রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে কেউ মজুত করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। কেউ যদি অতিরিক্ত মজুত করে অথবা পণ্যের অতিরিক্ত মূল্য নেয় তাহলে আমরা কঠোর হব।

তিনি আরও বলেন, জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ে এ বিষয়ে মনিটরিং টিম গঠন ও কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজনে জেলা প্রশাসকসহ মনিটরিং টিমের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে।

তিনি আরও বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এ পরিস্থিতি উত্তোরণ করতে আমরা সক্ষম হবো। তিনি অতিরিক্ত পণ্য ক্রয় থেকে বিরত থাকতে জনসাধারণকে অনুরোধ জানান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) একেএম হাফিজ আক্তার, নগর পুলিশের কমিশনার হুমায়ুন কবির, জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক, আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার মোহাম্মদ আফরাজুর রহমান, চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র সহসভাপতি মো. মাসুদুর রহমান রিংকু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪