রাজশাহীতে প্রথমে চীনের টিকা পেলেন মেডিক্যাল শিক্ষার্থীরা

রাজশাহী

রাজশাহীতে দ্বিতীয় দফায় করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। শনিবার (১৯ জুন) সকাল থেকে প্রথমে চীনের (সিনোফার্ম) টিকা পেয়েছেন মেডিক্যাল শিক্ষার্থীরা।

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজের ২১০ শিক্ষার্থীকে চীনের টিকা দেওয়া হয়। রোববার থেকে শিক্ষার্থীসহ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কয়েকটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা জনগোষ্ঠী প্রথম ডোজ হিসেবে এই করোনা টিকা পাবেন।

বর্তমানে অল্পপরিমাণে সিনোফার্ম টিকার বরাদ্দ পাওয়া গেছে। তাই এবার কেবলমাত্র রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে থাকা একটি সেন্টার থেকেই টিকাদান কর্মসূচি চালু থকবে। তবে যারা চীনের টিকার প্রথম ডোজ নেবেন তারা দ্বিতীয় ডোজও পাবেন। আপাতত সেভাবেই পরিকল্পনা করে এবার দ্বিতীয় দফায় টিকাদান কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা।

শনিবার সকাল ১০টার দিকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকাদানের মাধ্যমে কর্যক্রম শুরু করা হয়। এদিন দুপুর ২টা পর্যন্ত রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজের ২১০ শিক্ষার্থীকে করোনার টিকা দেওয়া হয়।

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, প্রথমেই রামেকের ২১০ জন শিক্ষার্থীকে চীনের টিকা দেওয়া হলো। পর্যায়ক্রমে রাজশাহীর অন্যসব মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে। রোববার রাজশাহীর বারিন্দ মেডিক্যাল কলেজ এবং সোমবার ইসলামী মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে।

রামেক হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী আরও বলেন, আপাতত মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের চীনের করোনার টিকা দেওয়ার নির্দেশ এসেছে। তাই তাদের টিকা কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এরপর অন্য শিক্ষার্থীদেরও টিকা দেওয়া হবে।

রাজশাহী সিভিল সার্জন ডা. কাইয়ুম তালুকদার জানান, রাজশাহী জেলার জন্য ৩১ হাজার ২০০ ডোজ টিকা এসেছে। প্রথম দিন কেবল রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হয়েছে। তবে মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আরও বেশ কয়েকটি ক্যাটাগরির মানুষ চীনের পাঠানো সিনোফার্মের এই ভ্যাকসিন পাবেন।

এর মধ্যে ডেন্টাল কলেজ, নার্সিং কলেজ, মেডিক্যাল টেকনোলজি কলেজের শিক্ষার্থী, সাধারণ শিক্ষার্থী, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, দাফন ও সৎকারে সংশ্লিষ্ট মানুষ, বিদেশগামী মানুষ, চীনা নাগরিক, পুলিশ, বিজিবিসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, প্রশাসনসহ যারা করোনা মোকাবিলায় ফ্রন্টলাইনার হিসেবে কাজ করছেন তারা সবাই চীনের এই টিকা পাবেন। এছাড়া যারা এর আগে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়ার জন্য আগে রেজিস্ট্রেশন করেছেন তারাও এই সিনোফার্ম টিকা পাবেন।

ডা. কাইয়ুম তালুকদার আরও বলেন, এবার টিকা কম তাই কেবল রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল সেন্টারেই দেওয়া হবে। অন্য কোনো সেন্টার থাকবে না। আর যারা প্রথম ডোজ পাবেন তারা এবার দ্বিতীয় ডোজ পাবেন। এই বিষয়টি নিশ্চিত করেই দ্বিতীয় দফায় টিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলেও জানান রাজশাহী সিভিল সার্জন।

রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাবিবুল আহসান তালুকদার বলেন, রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় প্রথম ডোজের (কোভিডশিল্ড) টিকা গ্রহীতার মোট সংখ্যা ৬ লাখ ৬৪ হাজার জন। দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন প্রায় ৩ লাখ ৯২ হাজার জন। এখনও রাজশাহী বিভাগের প্রায় ২ লাখ ৭২ হাজার মানুষ দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় আছেন। মজুদ ফুরিয়ে আসায় গত ২০ মে থেকে রাজশাহীতে প্রথম ডোজের টিকা দেওয়া পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়। প্রায় এক মাস পর আজ শনিবার (১৯ জুন) থেকে চীনের টিকা দিয়ে আবারও প্রথম ডোজ টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হলো।

বর্তমানে রাজশাহী বিভাগের আট জেলার জন্য বরাদ্দ পাওয়া গেছে ১ লাখ ১৪ হাজার ডোজ। এর মধ্যে রাজশাহী জেলার জন্য ৩১ হাজার ২০০ ডোজ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তাই রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালসহ অন্য জেলা শহরের সরকারি হাসপাতালগুলোতে নিজ নিজ ব্যবস্থাপনায় শনিবার চীনের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজ