রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রীর সভাস্থলের উভয় পাশে ৬ কিমি সড়কে যানজট

রাজশাহী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাকে ঘিরে সভাস্থল হরিয়ান সুগারমিলের ছয় কিলোমিটার সড়কজুড়ে তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টা বাজতেই রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কে আটকা পড়ে দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস, কাভার্ডভ্যান, হিউম্যান হলারসহ বিভিন্ন যানবাহন।

রাজশাহীর বিভিন্ন উপজেলা থেকে নেতাকর্মীরা দলে দলে পায়ে হেঁটে জনসভায় আসতে শুরু করায় এই অবস্থার সৃস্টি হয়েছে। এর উপর বিভিন্ন স্থান থেকে বাস এসে জনসভা স্থলের আশপাশে এলোপাতাড়িভাবে পার্কিং করায় সড়কে বিশৃঙ্খলা দেখা দিয়েছে।

রাজশাহী চিনিকল মাঠে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভার জন্য ওই এলাকায় যানবাহন চলাচলে নির্দেশনা দিয়েছিল রাজশাহী মহানগর পুলিশ (আরএমপি)। প্রধানমন্ত্রীর চলাচলের নিরাপত্তার স্বার্থে এবং জনসভায় গমনে শৃঙ্খলা আনার লক্ষ্যে রাজশাহী মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে এই বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা কাজে আসছে না। জনসমাগমে সব ব্যবস্থা ভেস্তে গেছে।

তবে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র সিনিয়র সহকারী কমিশনার (সদর) ইফতে খায়ের আলম  জানান, ট্রাফিক ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী ও নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়ক দিয়ে জনসভা অভিমুখী যানবাহনগুলো বাইপাস সংলগ্ন এলাকায় পার্কিং করতে বলা হচ্ছে।

নাটোর-রাজশাহী মহাসড়ক দিয়ে জনসভা অভিমুখী যানবাহনগুলো কাটাখালী জুট মিল মাঠে ও সংলগ্ন নর্দান পাওয়ার প্ল্যান্ট এলাকায় পার্কিং করতে হবে। তবে ভিআইপি ও স্টিকারযুক্ত গুরুত্বপূর্ণ জিপ ও মাইক্রোবাস জাতীয় গাড়িগুলো জনসভা সংলগ্ন মাঠ ও মাঠের আশেপাশে পার্কিংয়ের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

কোনো অবস্থাতেই বড় যানবাহন যেমন বাস, ট্রাক ইত্যাদি কাটাখালী থেকে জনসভা স্থলের দিকে এবং মাহেন্দ্রা বাইপাস থেকে জনসভা স্থলগামী সরু সড়কে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ সবার সহযোগিতা কামনা করেন মহানগর ‍পুলিশের এই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

খবরঃ বাংলানিউজ

3 thoughts on “রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রীর সভাস্থলের উভয় পাশে ৬ কিমি সড়কে যানজট

Comments are closed.