রাজশাহীতে বৃষ্টি হলেও কমেনি গরমের দাপট

রাজশাহী

মৌসুমি বায়ু সক্রিয় হয়ে ওঠায় টানা তাপদাহের পর রাজশাহীতে বৃষ্টি ঝরেছে। শুক্রবার (২১ জুন) প্রথম দফায় দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটে বৃষ্টি শুরু হয়ে চলে ১টা ১০ মিনিট পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যে দুই মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

এরপর বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে বৃষ্টি শুরু হয়। চলে ৩টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত। বৃষ্টি প্রথমে মুষলধারে শুরু হলেও পরে গতি কমে আসে। ৩টার পর ২০ মিনিট ধরে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি চলে গোটা শহরে।

আকাশে মেঘ আছে তাই আরও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আষাঢ়ের শুরুতে রাজশাহীতে আজ দ্বিতীয় দফায় বৃষ্টি ঝরেছে। কিন্তু বৃষ্টির পর ভ্যাপসা গরম অনুভূত হচ্ছে।

তবে টানা তাপদাহ কিছুটা হলেও প্রশমিত হয়েছে। দাবদাহের কারণে তামাটে বর্ণ ধারণ করা সবুজ প্রকৃতিতে আবারও সতেজতা ফিরতে শুরু করেছে।

ঢাকা আবহাওয়া অধিদফতরের (সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টা) পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় যে লঘুচাপটি তৈরি হয়েছে তা একই এলাকায় অবস্থান করেছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় রয়েছে।

এর প্রভাবে রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গা; ঢাকা ও বরিশাল বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের দুই এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

বৃষ্টির কারণে রাজশাহী, পাবনা, খুলনা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া অঞ্চলগুলোর ওপর দিয়ে যে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে তা কিছুটা প্রশমিত হবে। এছাড়া সারাদেশেই দিন ও রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে বলেও পূর্বাভাসে উল্লেখ করা হয়েছে।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক আবদুস সালাম বাংলানিউজকে বলেন, আজ রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বনিম্ম তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ২৭ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সকাল ৬টায় বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৯৬ শতাংশ এবং বিকেল ৩টায় ৮৩ শতাংশ।

এর আগে গত ৯ মে রাজশাহীতে চলতি মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর পর মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে রাজশাহীর ওপর।

তবে শুক্রবারের বৃষ্টিতে এই তাপমাত্রা কিছুটা হলেও কমে এসেছে। আষাঢ় শুরুর পর এর আগে গত ১৭ জুন প্রথম বৃষ্টি হয় রাজশাহীতে। ওই দিন বিকেল ৩টা ৩৫ মিনিটে হঠাৎ করেই বৃষ্টি শুরু হয়। চলে ৩টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত। এই সময় পর্যন্ত রাজশাহী আবহাওয়া অফিসে ৩ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত আবহাওয়া কর্মকর্তা আবদুল মান্নান বলেন, রাজশাহীতে বৃষ্টির পরিমাণ কমে যাচ্ছে। গেল বছর ৯৮ দিনে রাজশাহীতে বৃষ্টি হয়েছে ৯৫৪ মিলিমিটার। অথচ ২০১১ সালেই বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছিল ১ হাজার ৪৭৭ মিলিমিটার। ওই বছর বৃষ্টি হয়েছিল মোট ১০৫ দিন। দিনদিন বৃষ্টিপাত কম হওয়ার কারণে এ অঞ্চলের তাপমাত্রা বাড়ছে এবং বৃষ্টির পরিমাণ কমছে। ক্রমেই মরুপ্রবণ হয়ে যাচ্ছে রাজশাহীসহ উত্তরের বরেন্দ্র অঞ্চল বলেন এই আবহাওয়া কর্মকর্তা।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর