রাজশাহীতে ভ্যান চালক কাউন্সিলর প্রার্থী!

বাঘা রাজশাহী রাজশাহী বিভাগ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌর নির্বাচনে এবার ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ভোটের লড়াইয়ে মাঠে নেমেছেন আবদুল কুদ্দুস নামের এক প্রার্থী। গ্রামের লোকের কাছে ‘কুদু’ নামে পরিচিত এ কাউন্সিলর প্রার্থী পেশায় ভ্যান চালক। আসন্ন পৌর নির্বাচন ঘিরে ভিন্ন পেশার এ মানুষটি এখন সবার আলোচনায়।

মনের সুপ্ত বাসনা থেকেই ভোটে দাঁড়ানো, এমনটিই জানান কুদু। সাধ্য না থাকলেও অনেকটা সাধ করেই নির্বাচন করছেন। দু’পায়ের জোরে তিন চাকার ভ্যান চালিয়েই চষে বেড়াচ্ছেন ভোটের মাঠ।

পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার অনেক আগেই তার ১নং ওয়ার্ডের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি মোড়ে রঙিন ব্যানার টাঙিয়ে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জানান দেন আবদুল কুদ্দুস।

কোনোদিন স্কুলের পথ না মাড়ানো আবদুল কুদ্দুস নিজের নাম সই করতে পারেন না। তাতে কী, মনোনয়নপত্র ও হলফনামায় টিপসই ব্যবহার করেছেন। তার সহধর্মিনী মনোয়ারা বেগম বাড়িতে হাঁস-মুরগি লালন-পালন করেন। বড় ছেলে খায়রুল বাজারের ফুটপাথে পান বিক্রি করেন।

কিন্তু ছোট ছেলে জয়নাল উদ্দিন আড়ানী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। তার মাধ্যমেই উপজেলা নির্বাচন অফিসের বিভিন্ন তথ্য এবং প্রতিদিন গণমাধ্যমে আসা নির্বাচন কমিশনের বিভিন্ন নির্দেশনার তথ্য সম্পর্কে জানতে পারছেন আবদুল কুদ্দুস। এতেই তার বেশ কাজ চলে যাচ্ছে।

আবদুল কুদ্দুস জানান, পেশায় ভ্যান চালক হলেও অনেক দিন থেকেই তিনি নির্বাচন করার ইচ্ছে মনের মধ্যে পুষে রেখেছিলেন। এবার তার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন মাত্র। ১নং ওয়ার্ডের জোতরঘু গ্রামের সামসের প্রামানিক তার বাবা। মৃত্যুর আগে ছেলের জন্য দুই শতক জমি লিখে দিয়েছিলেন।

মা লতিফা বেওয়া ও স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে সেখানেই তার বাস। ভ্যান চালিয়ে যা আয় হয় আর বড় ছেলে খায়রুলের পান এবং স্ত্রীর লালিত-পালিত হাঁস-মুরগির ডিম বিক্রির অর্থ দিয়েই চলে তাদের অনটনের সংসার।

আবদুল কুদ্দুসের আশা সরলতা এবং সততার কারণে গ্রামের ভোটাররা তাকে ভোট দেবেন এবং তিনি জয়লাভ করবেন। জয়ী হলে গ্রামের মানুষের দারিদ্র্য দূরে কাজ করবেন বলে জানান।

রাজশাহীর বাঘা উপজেলা রিটার্নিং অফিসার হামিদুল ইসলাম জানান, আড়ানী পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের ভোটার সংখ্যা এক হাজার ১৮২ জন। ওই ওয়ার্ডে আবদুল কুদ্দুস ছাড়াও ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে আরও তিন জন প্রার্থী রয়েছেন।

তারা হলেন- বর্তমান কাউন্সিলর আবদুল মালেক ও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রেজাউল করিম রেজা এবং রবিউল ইসলাম। যাচাই-বাছাই শেষে তারা সবাই বর্তমানে বৈধ প্রার্থী।

বাংলানিউজ-http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/447851.html