রাজশাহীতে মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য রাখায় এক প্রতিষ্ঠানকে অর্ধ লক্ষ টাকা জরিমানা

রাজশাহী

সৌদিয়া ডিমার্টমেন্টাল স্টোরে মেয়াদোত্তীর্ণ ও মূল্য তালিকা বিহীন পণ্যের ছড়াছড়ি। দোকানে পণ্যের প্যাকেটের গায়ে মূল্য তালিকা ও আমদানিকারকের নাম না থাকাসহ মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য রাখার অভিযোগে নগরীর একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজশাহী নগরীর ভদ্রা মোড়ে অভিযান পরিচালনা করে সৌদিয়া ডিপার্টমেন্টাল স্টোরকে এই অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। ভোক্তা অধিকারের নিয়মিত বাজার অভিযানে ৩৭ ও ৫১ ধারায় সৌদিয়া ডিমার্টমেন্টাল স্টোরের সত্বাধিকারী জানে আলম সুমনকে যথাক্রমে ২৫ হাজার ও ২৫ হাজার করে মোট ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর রাজশাহীর সহকারী পরিচালক হাসান আল মারুফ। এ সময় জানে আলম ভোক্তা অধিকারের কাছে সেই জরিমানার অর্থ পরিশোধ করেন।

ভোক্তা অধিকারের সহকারী পরিচালক হাসান আল মারুফ জানান, রাজশাহীতে ভোক্তা অধিকারের নিয়মিত বাজার অভিযানে অংশ হিসেবে ভদ্রা মোড়ে অবস্থিত সৌদিয়া ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় দোকানটিতে মেয়াদোত্তীর্ন স্প্রাইট ৯টি (৬০০মিলি), সেজান জুস, হট টমেটোটো সস সহ প্যাকেটের গায়ে সংশ্লিস্ট পণ্যের মূল্য উল্লেক নাই, উৎপাদনের তারিখ ও মেয়াদ দেয়া নাই এবং আমদানী কারকের নাম নাই এমন দুধ, মাংস, মেওনিস সস ও বিস্কিটসহ বেশ কিছু পণ্য জব্দ করা হয়। যা বিক্রির জন্য দোকানটিতে রাখা হয়েছিল। পরে জব্দকৃত পণ্যগুলো সকলের সামনে ধ্বংস করা হয়।

এরপর নিয়ম অনুসারে ৩৭ ও ৫১ ধারায় ব্যবসায়ী সৌদিয়া ডিমার্টমেন্টাল স্টোরকে যথাক্রমে ২৫ ও ২৫ করে মোট ৫০ হাজার টাকা জরিমানার অর্থ আদায় করা হয়। এসময় ভোক্তাদের স্বার্থে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানটির সংশ্লিষ্টদের সতর্ক করা হয়।

ভোক্তা অধিকারের এই কর্মকর্তা আরো জানান, এই সৌদিয়া ডিপামেন্টাল স্টোরকে এর আগেও একই ধরণের অপরাধের কারণে দুই বার জরিমানা করার পাশাপাশি সতর্ক করা হয়েছিল।

অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগের ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক সৈয়দ মোস্তাক হাসান। অভিযান পরিচালনায় সহযোগীতা করেন রাজশাহী মাহানগর পুলিশের সদস্যবৃন্দ।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ দৈনিক সানশাইন