রাজশাহীতে রাউধাকে নিয়ে অস্ট্রেলিয়ান টেলিভিশনের প্রামাণ্যচিত্র

রাজশাহী

আন্তর্জাতিক সাময়িকী ‘ভোগ’র মডেল রাউধা আতিফকে নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করছে অস্ট্রেলিয়ার টেলিভিশন চ্যানেল ‘নাইন’। এ জন্য রাজশাহীর ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের ছাত্রীনিবাসের যে কৰে রাউধা থাকতেন, সে কৰের ভিডিও ধারণ করেছেন নির্মাতারা।

গতকাল সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার এই দলটি রাউধার কৰের পাশাপাশি ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের বিভিন্ন স্থানের দৃশ্য ধারণ করেন। এ সময় তারা রাউধা আতিফের বাবা মোহাম্মদ আতিফ ও রাউধা মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তার বক্তব্যও রেকর্ড করেন। রাউধার কৰের ভেতরে দাঁড়িয়েই ক্যামেরার সামনে মোহাম্মদ আতিফ দাবি করেন, তার মেয়েকে হত্যাই করা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ান চ্যানেল নাইনের ‘সিঙটি মিনিট’ নামের একটি অনুষ্ঠানের জন্য প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাণ করা হচ্ছে। এ অনুষ্ঠানের প্রডিউসার মিস লওরা স্পারস নিজেই রাজশাহী এসেছেন। তার সঙ্গে এসেছেন সিঙটি মিনিটের উপস্থাপক মিস্টার পিটার, ক্যামেরাপার্সন মাইক কোল, শব্দ প্রকৌশলী মিস্টার মার্ক এবং তাদের সহকারী মিস্টার স্টুয়ার্ট।

রাউধার কৰে, ক্যামেরার পাশে দাঁড়িয়েই প্রডিউসার মিস লওরা স্পারস বললেন, রাউধা একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মডেল ছিলেন। কিন্তু তার মৃত্যু নিয়ে অনেক রহস্য। বিনোদন জগতের লোকজন তার মৃত্যুর সর্বশেষ খবর জানতে চান। তাদের জন্যই এই প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করা হচ্ছে। তারা মনে করেন, রাউধার মৃত্যুর বিষয়টি পরিষ্কার হওয়া দরকার।
গত ২৯ মার্চ রাজশাহীর নওদাপাড়ায় অবস্থিত ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের ছাত্রীনিবাস থেকে রাউধা আতিফের (২২) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি ওই কলেজের এমবিবিএস দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। মালদ্বীপের নীলনয়না মেয়ে রাউধা বাংলাদেশে এসেছিলেন পড়তে। পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি মডেলিং করতেন।

রাউধার মৃত্যুর দিনই কলেজ কর্তৃপক্ষ শাহমখদুম থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করে। রাউধার লাশ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে রাজশাহীতে দাফন করা হয়। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, রাউধা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এরপর মালদ্বীপরে দুই পুলিশ কর্মকর্তা রাজশাহীতে গিয়ে ঘটনা তদন্ত করেন।

এদিকে রাউধার মৃত্যুর ঘটনায় কলেজের পক্ষ থেকেও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। সে কমিটিও তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, রাউধা আত্মহত্যা করেছেন। তবে রাউধার বাবা মোহাম্মদ আতিফ এসব প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে গত ১০ তিনি এপ্রিল রাজশাহীর আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

এ মামলায় রাউধার সহপাঠী ভারতের কাশ্মিরের মেয়ে সিরাত পারভীন মাহমুদকে (২১) একমাত্র আসামি করা হয়। সিরাতকে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা না হলেও তার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। অস্ট্রেলিয়ান টেলিভিশন চ্যানেলটি সিরাতেরও বক্তব্য ধারণ করতে চেয়েছিল। তবে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিঙটি মিনিট টিমকে জানিয়েছেন, সিরাত এ ব্যাপারে কোনো বক্তব্য দিবেন না।

গত ১৪ এপ্রিল হত্যা মামলাটি শাহমখদুম থানা থেকে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) হস্তান্তর করা হয়। এরপর কবর থেকে লাশ তুলে দ্বিতীয়বারের মতো রাউধার লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়। সে প্রতিবেদনেও বলা হয়েছে, রাউধা আত্মহত্যা করেছেন। তবে মোহাম্মদ আতিফ এখনও দাবি করে আসছেন, তার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে। মামলা দায়েরের পর থেকে তিনি রাজশাহীতেই অবস্থান করছেন। কনকলতা নামে রাজশাহীর এক নারীকে তিনি বিয়েও করেছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক আসমাউল হক জানান, রাউধার মুঠোফোন পরীৰা করে জানা গেছে, শাহি গনি নামে মালদ্বীপের এক যুবকের সঙ্গে রাউধার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। শাহি পড়াশোনার জন্য লন্ডনে থাকেন। তার সঙ্গে সম্পর্কের টানাপোড়েন চলছিল রাউধার। মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিতে এসব প্রমাণাদি বেশ কাজে লাগবে বলে মনে করেন তিনি।

খবরঃ দৈনিক সোনালী সংবাদ

2 thoughts on “রাজশাহীতে রাউধাকে নিয়ে অস্ট্রেলিয়ান টেলিভিশনের প্রামাণ্যচিত্র

Comments are closed.