রাজশাহীতে লালনশাহ পার্কের জায়গায় গোয়াল ঘর, ক্লাব

রাজশাহী

রাজশাহী নগরবাসী অবসরে একটু সময় কাটাতে যান পদ্মাপাড়ে। এ কথাটা মাথায় রেখে সিটি করপোরেশন সেখানে দৃষ্টিনন্দন বিনোদন কেন্দ্র লালন শাহ পার্ক নির্মাণ শুরু করে। কিন্তু প্রায় এক বছর হলো বন্ধ রয়েছে কাজ। এতে ভেস্তে যেতে বসেছে কোটি টাকার প্রকল্প। এ সুযোগে দখল হয়ে যাচ্ছে নির্মাণাধীন সৌন্দর্য বর্ধন স্থাপনা। এ অবস্থায় সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে সমাধানের আহ্বান জানিয়েছে নাগরিক সংগঠনগুলো। দ্রুত আলোচনার মাধ্যমে কাজ শেষ করার আশ্বাস দিয়েছে সিটি করপোরেশন।

কোনো বিশেষ দিবস বা নিত্যদিনের একটু প্রশান্তির খোঁজে নগরবাসীর প্রথম পছন্দের স্থান পদ্মা নদীর পাড়। তাই স্থানটিকে ফুল, ঘাস কার্পেট ও সবুজ বেষ্টনী করে দৃষ্টিনন্দন পার্ক হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয় সিটি কর্পোরেশন। বিনোদনের জন্য নির্মাণ করা হয় সাংস্কৃতিক মঞ্চ। পার্ক রক্ষণাবেক্ষণে নির্ধারণ করা হয় নামমাত্র প্রবেশ মূল্যও। কিন্তু তাতেই বাধ সাধে রাজশাহীর নাগরিক সংগঠনগুলো। তাদের আন্দোলনের মুখে বন্ধ হয় পার্ক নির্মাণের কাজ। এ সুযোগে পার্ক জুড়ে গড়ে উঠেছে গবাদি পশুর গোয়াল ঘর ও দলের নামে ক্লাব ঘর, আর দখলদারদেও নৈরাজ্য। ময়লা আবর্জনায় ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে পার্ক এলাকা। রক্ষণাবেক্ষণ না থাকায় নষ্ট হচ্ছে কোটি টাকার সৌন্দর্যবর্ধন স্থাপনাও।

এ অবস্থায় নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে পার্ক নির্মাণে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণের পরামর্শ নাগরিক সংগঠনগুলোর নেতাদের।

অবশ্য এ বিষয়ে পরামর্শ নিয়ে প্রকল্পটির কাজ শেষ করার আগ্রহ প্রকাশ করছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন প্রধান প্রকৌশলী মো: আশরাফুল হক।

তিনি বলেন, ‘পুরোপুরি ফ্রি করে এর বিনোদনের সুযোগ দেয়া সম্ভব নয়। সেখানে একটি ম্যানেজমেন্ট থাকতে হবে। আর আগে যারা এর বিরোধিতা করেছে তাদের অনুরোধ করবো তারা যেন সেই অবস্থান থেকে সরে আসে।’

সিটি কর্পোরেশনের দেয়া তথ্য মতে, ২ কোটি ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে চার বিঘা জায়গা জুড়ে নির্মাণ হচ্ছে লালনশাহ পার্ক।

খবরঃ সময়নিউজ

9 thoughts on “রাজশাহীতে লালনশাহ পার্কের জায়গায় গোয়াল ঘর, ক্লাব

  1. খুবই খারাপ! ওরা পরিবেশটাই নষ্ট করে ফেলেছে। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

  2. আমার জানা মতে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ এলাকাটি অনেক টাকা খরচ করে ঘিরে পার্ক হিশাবে ব্যাবহার করার ঘোষনা দিয়েছিল। কিন্ত এলাকাবাসী সহ কয়েকটি সংগঠন মিলে এর প্রতিবাদে কয়েক দিন শহরের বিভিন্ন জায়গায় মানববন্দন করে ছিল।পরে সব ভেস্তে যায়।

  3. খুবই খারাপ! ওরা পরিবেশটাই নষ্ট করে ফেলেছে। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আর বিশেষ করে ক্লাব ঘর এর ছেলেরা খুব disturb করে দরশনারথি দের।

Comments are closed.