রাজশাহীতে শিবির সন্দেহে ৩ শিক্ষার্থীকে পেটালো ছাত্রলীগ

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী কলেজ

রাজশাহীতে কলেজের হোস্টেলে শিবিরকর্মী সন্দেহে তিন শিক্ষার্থীকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ।

বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে কলেজের মুসলিম হোস্টেলের নিউ ব্লকে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে কলেজে রাতে উত্তেজনা বিরাজ করে।

পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত তিন শিক্ষার্থীর মধ্যে মামুন নামের একজনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, রাত ৯টার দিকে রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নাইমুল হাসানের নেতৃত্বে একদল কর্মী-সমর্থক মুসলিম হোস্টেলে ঢুকে গণিত বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মামুনের সঙ্গে করমর্দন করার চেষ্টা করেন।

তবে মামুন ছাত্রলীগের সঙ্গে করমর্দন করতে রাজি না হওয়ায় তাকে ধরে পেটাতে থাকেন নাইমুল হাসানসহ তার সহকর্মীরা।

এদিকে, শিবিরের ওপর হামলা হয়েছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে শিবিরের একদল কর্মী-সর্মথক ছাত্রলীগের ওপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে।

এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে শিবিরের নেতাকর্মীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনার পরে ছাত্রলীগের কর্মীরা হোস্টেলের একটি কক্ষে ভাঙচুর চালায়।

আহত মামুন জানান, কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই ছাত্রলীগ কর্মী নাইমুল হাসান ও তার সহকর্মীরা আমাকে শিবির কর্মী লাঠি দিয়ে ‍আমাকে মারতে থাকে।

এতে তিনি গুরুতর আহত হন। এ ঘটনার পরে শিবির সন্দেহে আরও  দুই শিক্ষার্থীকে পেটায় ছাত্রলীগের ওই নেতাকর্মীরা। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

রাজশাহী কলেজ অধ্যক্ষ হবিবুর রহমান, তিন শিক্ষার্থীকে পিট‍ানোর কথা স্বীকার করেন বলেন, এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে।

মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাৎ হোসেন খান জানান, পুলিশ নিরাপত্তার বিষয়টি দেখছে। এ ব্যাপারে মামালা হবেও বলে জানান ওসি।

বাংলানিউজ-http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/474916.html