রাজশাহীতে সড়ক দুর্ঘটনায় মামা-ভাগ্নে নিহত

রাজশাহী

রাজশাহীতে দুই ট্রাকের চাপায় ব্যাটারি চালিত অটোরিকশার চালক ও এক যাত্রী নিহত হয়েছেন। নিহতরা দুজন সম্পর্কে মামা-ভাগ্নে।

রোববার দুপুরে রাজশাহী মহানগরীর তালাইমারী এলাকায় মর্মান্তিক এই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নগরীর সাধুরমোড় এলাকার সোলেমান আলীর ছেলে বিশাল হোসেন (২১) ও তার ভাগ্নে হাসিবুল ইসলাম হাসিব (১৯)। হাসিব নগরীর কুঠিপাড়া এলাকার টুটুল হোসেনের ছেলে। দুর্ঘটনার সময় হাসিব অটোরিকশা চালাচ্ছিলেন। আর বিশাল সেই অটোরিকশায় বসে ছিলেন।

দুর্ঘটনার পর নিহতদের হাসপাতালে নিয়ে যান কয়েকজন যুবক। তাদের একজন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র রানা হামিদ। তিনি জানান, দুপুর ১টার দিকে তালাইমারী নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের মোড়ে সড়কে দুটি ট্রাক দুই দিক থেকে যাচ্ছিল। ওই সময় শহর থেকে বের হচ্ছিল একটি অটোরিকশা। অটোরিকশাটি দুটি ট্রাকের মধ্যে ঢুকে যায়। এতে দুই ট্রাকের চাপায় অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় বিশাল ও হাসিবকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ইসিজি করার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক দুজনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত হাসিবের খালু আরিফ শেখ জানান, ছোট বেলা থেকেই হাসিব তার নানা বাড়িতে থাকতেন। বছর দুয়েক আগে থেকে তিনি অটোরিকশা চালাতেন। তার অটোরিকশাতে চড়েই মামা বিশাল যাচ্ছিলেন।

নগরীর বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহাদাত হোসেন খান জানান, বিক্ষুব্ধ জনতা রাস্তা অবরোধের চেষ্টা করলেও পুলিশ তা নিয়ন্ত্রণ করেছে। দুর্ঘটনার পর স্থানীয়রা ট্রাক দুটিকেও আটক করেছে। তবে চালক দুজন পালিয়ে গেছেন। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খবরঃ রাইজিংবিডি