রাজশাহীতে হোটেলে খুনের ঘটনায় ব্যবস্থাপক ও কর্মচারী রিমান্ডে

রাজশাহী

রাজশাহীতে আবাসিক হোটেলে কর্মচারী খুনের ঘটনায় হোটেলের ব্যবস্থাপক ও অপর এক কর্মচারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল রোববার তাঁদের সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়। আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

হোটেল ব্যবস্থাপকের নাম রিপন চৌধুরী ও কর্মচারী সাজেদুল ইসলাম। নগরের সাহেব বাজার এলাকায় অবস্থিত হোটেল আল হাসিবের একটি কক্ষে গত শুক্রবার দিবাগত রাতে সিরাজুল ইসলাম (৪০) নামের এক কর্মচারী খুন হন। গত শনিবার দুপুরে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে। বিকেলে সিরাজুলের স্ত্রী কেয়া পারভীন বাদী হয়ে নগরের বোয়ালিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

মহানগরের বোয়ালিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেলিম বাদশা বলেন, এ ঘটনায় গত শনিবার রাতেই হোটেলের ব্যবস্থাপক রিপন চৌধুরী ও কর্মচারী সাজেদুল ইসলামকে প্রথমে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। পরে তাঁদের হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। সেলিম বাদশা আরও বলেন, রিমান্ডে তাঁরা মামলার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বের করতে পারবেন বলে আশাবাদী। হোটেলের ৪০৩ নম্বর কক্ষে কর্মচারীর লাশ পড়ে ছিল। ওই কক্ষের বোর্ডারকে পাওয়া যায়নি। অভ্যর্থনা কক্ষে রাখা রেজিস্টার থেকে তাঁর নাম-ঠিকানা লেখা পাতাটিও পাওয়া যায়নি। পুলিশ রেজিস্টারটি জব্দ করে সিআইডি বিশেষজ্ঞের কাছে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

নিহত সিরাজুলের বাড়ি রাজশাহীর তানোর উপজেলার চান্দুড়িয়া এলাকায়। তিনি নগরের আমবাগান এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকতেন। পরিবারের সদস্যরা গ্রামেই থাকতেন। ১৭ বছর ধরে তিনি এই হোটেলে কর্মরত ছিলেন।

খবরঃ প্রথম-আলো