রাজশাহীতে ১৩টি পৌরসভার ৩৯ ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ

রাজশাহী রাজশাহী বিভাগ

রাজশাহীতে ১৩টি পৌরসভা নির্বাচনে দুইটি পৌরসভার সব ভোটকেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

তবে সরকারিভাবে এগুলোকে ঝুঁকিপূর্ণ না বলে অধিক গুরুত্বপূর্ণ বলা হচ্ছে। পৌরসভা দু’টি হচ্ছে রাজশাহীর তানোর উপজেলার তানোর এবং মুন্ডুমালা পৌরসভা।

এছাড়া ১৩টি পৌরসভার মোট ১৩৮টি কেন্দ্রের মধ্যে ৩৯টি কেন্দ্র অধিক গুরুত্বপূর্ণ এবং ৫৩টি গুরুত্বপূর্ণ। বাকিগুলো সাধারণ ভোটকেন্দ্র হিসেবে বলা হচ্ছে।

রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ বলেন, ঝুঁকির অভিজ্ঞতার আলোকে কেন্দ্রগুলোকে এবার গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ভোট কেন্দ্রের অবস্থান ও প্রার্থীদের বাড়িসহ বিভিন্ন দিক বিবেচনা করে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তিন ক্যাটাগরি করেছে। যার ভিত্তিতে ভোটকেন্দ্রগুলো চিহ্নত করা হয়েছে বলে জানান পুলিশের এ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

তিনি জানান, রাজশাহী জেলার নেওহাটা পৌরসভার ১৯টি কেন্দ্রের মধ্যে চারটি কেন্দ্র অধিক গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- নওহাটা উচ্চ বিদ্যালয় (পুরুষ), নওহাটা বিজ্ঞান প্রযুক্তি ভোকেশনাল, পুঠিয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ও তেঘর দাখিল মাদ্রাসা ভোটকেন্দ্র।

রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট পৌরসভার নয়টি কেন্দ্রের মধ্যে দুইটি কেন্দ্র অধিক গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- সাঁকোয়া বাকশৈল কামিল মাদ্রাসা ও হরিদাগাছি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র।

বাগমারা উপজেলার ভবানীগঞ্জের নয়টি পৌরসভার মধ্যে তিনটিকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- ভবানীগঞ্জ মহিলা কলেজ, ভবানীগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও শহীদ সেকেন্দারী মেমোরিয়াল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র।

উপজেলার তাহেরপুর পৌরসভার নয়টি কেন্দ্রের মধ্যে চারটিকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- তাহেরপুর উচ্চ বিদ্যালয়, নূরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, জামগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও খয়রা বেসরকারি মাদ্রাসা সংলগ্ন খয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র।

রাজশাহীর পুঠিয়া পৌরসভার ১১টি কেন্দ্রের মধ্যে তিনটিকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- পালোপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, পুঠিয়া কিন্ডারগার্টেন স্কুল ও পুঠিয়া মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র।

রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার নয়টি কেন্দ্রের মধ্যে তিনটি কেন্দ্র অধিক গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- মুক্তারপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সরদহ মহাবিদ্যালয় ও থানাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র।

বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌরসভার নয়টি কেন্দ্রের মধ্যে দু’টি কেন্দ্র অস্থায়ী। এই দু’টি কেন্দ্রকেই অধিক গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে- হামিদকুড়া ঈদগাহ মাঠ ময়দান ও সাহাপুর নিউ মডেল ক্লাব। এছাড়া দুর্গাপুর উপজেলার নয়টি, গোদাগাড়ীর ১৬টি ও কাঁকনহাটের ১১টি কেন্দ্রের সবগুলো কেন্দ্রকেই সাধারণ ঘোষণা করা হয়েছে।

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ বলেন, অধিক গুরুত্বপূর্ণ ভোট কেন্দ্রগুলোতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি সদস্য থাকবে। জেলায় প্রায় ১ হাজার ৪০০ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

তাই এসব ভোটকেন্দ্র অধিক গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করা হলেও শান্তিপূর্ণভাবেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন পুলিশের এই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

বাংলানিউজ-http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/453171.html