রাজশাহীতে ৭ বছরের শিশুকে গলা কেটে হত্যা, সৎ বাবা আটক

পুঠিয়া রাজশাহী

রাজশাহীর পুঠিয়ায় রিফাত হোসেন নামে সাত বছরের এক শিশুকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির সৎ বাবা মোহাম্মদ আলীকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৮ মে) দিনগত রাত ১২টার দিকে জেলার পুঠিয়া উপজেলার সেনভাগে ঘটনাটি ঘটে। নিহত রিফাতের বাড়ি নাটোরের একডালা এলাকায়। পারিবারিক কলহের জের ধরে তাকে নেইল কাটার চাকু দিয়ে গলা কেটে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় বলে জানা যায়।

পরিবারের বরাত দিয়ে রাজশাহীর পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকিল আহমেদ বলেন, মোহাম্মদ আলী সাত বছর আগে ধর্ম পরিবর্তন করে মুসলমান হন। গত সাত মাস আগে তিনি বুলবুলি খাতুন নামে এক নারীকে বিয়ে করেন। বুলবুলির প্রথম স্বামীর সন্তান রিফাত। প্রথম স্বামীকে তালাক দিয়ে মোহাম্মদ আলীকে বিয়ে করেছিলেন বুলবুলি।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে ঘাতক মোহাম্মদ আলী জানিয়েছেন, তার স্ত্রী বুলবুলি নতুন করে সন্তান নিতে না চাওয়ায় সৎ সন্তান রিফাতকে তিনি হত্যা করেছেন। হত্যার আগে শিশুটিকে তরমুজ কিনে দেওয়ার নাম করে নাটোরে শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরানো হয়। পরে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের পুঠিয়ার সেনভাগ এলাকায় রিফাতকে এনে চাকু দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে বাসায় চলে যান মোহাম্মদ আলী।

বাসায় গিয়ে পরিবারের লোকজন রিফাতের কথা জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করেন। এমনকি রিফাতকে তিনি দেখেননি বলে দাবি করেন। তবে শেষ পর্যন্ত রিফাত সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে বলে জানান। সেই সূত্র ধরে নাটোর থানা পুলিশ পুঠিয়া থানায় খবর দেয়।

ওসি বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রিফাতের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে ঘাতক মোহাম্মদ আলীকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে তাকে থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে আদালতে পাঠানো হবে।

আদালতে তার বিরুদ্ধে রিমান্ডের আবেদন করা হবে বলেও বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর