রাজশাহীর তিন স্থান উল্লেখ করে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছে বিএনপি

রাজশাহী

আগামী পহেলা মার্চ রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ। সমাবেশের জন্য মহানগরের তিনটি স্থান উল্লেখ করে তাই এরইমধ্যে পুলিশের কাছে আবেদন করেছে রাজশাহী বিএনপি।

তবে, পুলিশের পক্ষ থেকে এখনও সমাবেশের স্থান নির্ধারণ বা সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। আগামী সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) এই ব্যাপারে আলোচনার জন্য মহানগর বিএনপির শীর্ষ নেতাদের রাজশাহী পুলিশ সদর দপ্তরে ডাকা হয়েছে।

জানতে চাইলে-রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বাংলানিউজকে বলেন, আগামী ১ মার্চ রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

এই লক্ষ্যে প্রতিদিনই ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে কর্মীসভা ও প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এছাড়া সমাবেশের অনুমতি চেয়ে তিনটি স্থান উল্লেখ করে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনারের কাছে আবেদন করা হয়েছে।

ওই আবেদনে সাক্ষর করেছেন তিনি এবং রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন। আবেদনটি পুলিশের বিবেচনায় রয়েছে। এখন পর্যন্ত পুলিশের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি। তবে, সোমবার এ ব্যাপারে বসার জন্য তাদেরকে ডাকা হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশের জন্য এবার সাহেববাজার বড় মসজিদের সামনে, গণকপাড়ার উত্তরদিকে ও সোনাদীঘি মোড়ের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এখন পুলিশ যে স্থানে অনুমতি দেবে সেখানেই বিভাগীয় সমাবেশের আয়োজন করা হবে।

এই সমাবেশে গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে পরাজিত তিনিসহ ছয় পরাজিত মেয়রপ্রার্থীই বক্তব্য রাখবেন। এছাড়া কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিত থাকবেন। ওই সমাবেশ থেকে পরবর্তী আন্দোলন কর্মসূচি রূপরেখা ঘোষণা করা হবে বলেও উল্লেখ করেন এই বিএনপি নেতা।

এদিকে, করোনার মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৫ বিভাগীয় শহরে সমাবেশ করবে বিএনপি। গত ৪ ফেব্রুয়ারি এই কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয়। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণসহ ৬টি সিটি করপোরেশনের সর্বশেষ নির্বাচনে অংশ নেওয়া মেয়র প্রার্থীদের উদ্যোগে এসব সমাবেশ হবে। নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন ও নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পদত্যাগের দাবিতে এই কর্মসূচি শুরু হয়েছে।

নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে সিটি নির্বাচনে অংশ নেওয়া ধানের শীষের প্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। এতে ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও রাজশাহী বিভাগীয় শহরে মোট ৬টি সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত হয়। এর মধ্যে ঢাকার উত্তর ও দক্ষিণ দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে আলাদাভাবে কর্মসূচি পালন করা হবে। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি প্রথম সমাবেশ হয় বরিশাল জিলা স্কুল মাঠে। ওই সমাবেশে ৬ মেয়র প্রার্থীই উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেছেন, মার্চে রাজশাহীতে যে বিভাগীয় সমাবেশ হবে, সেখান থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরুর ডাক দেওয়া হবে। গত ১১ ফেব্রুয়ারি দুপুরে রাজশাহীতে বিএনপির এক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি সরকারের পতন ত্বরান্বিত করতে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তেও নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজ