রাজশাহী নগরীতে অটোরিকশায় দাড়ানোর চেষ্টা রাবেয়ার

রাজশাহী

হাত না পেতে অটোরিকশা চালনা অনেক সম্মানের মনে করেন পরিশ্রমী রাবেয়া। চার সন্তানের জননী অনেক দিন আগেই অন্য নারীকে বিয়ে করে স্বামী চলে গেছেন। তাই ছোট-মেয়েদের নিয়ে সংসারের বোঁঝা রাবেয়ার কাঁধেই। তাই জীবিকার তাগিদে রাবেয়াকে ঘুরাতে হচ্ছে অটোরিক্সার চাকা। প্রথম প্রথম লজ্জা হলেও এখন অটো চালাতে খারাপ লাগে না তার।

রাবেয়া রাজশাহী নগরীর আমচত্বর এলাকার বাসিন্দা। সন্তানদের নিয়েই তিনি সেখানেই বসবাস করেন। রাবেয়া জানান, তিনি কিছু দিন আগেও জানতেন না তাকে অটোরিক্সা চালক হবে। সংসার চালানো জন্যই তিনি অটোরিকশা চালাচ্ছেন। এই পেশায় আসার বিষয়ে তিনি বলেন, উপায় নেই। ছোট ছোট ছেলে- মেয়ে। তাদের মুখে খাবার তুলে দিতে এর বিকল্প নেই। তা ছাড়া অপরের কাছে হাত পাতার চেয়ে অটো চালানো অনেক সম্মানের বলে তিনি জানান।

তিনি আরে বলেন, স্বামী আরো একটি বিয়ে করে সেই নারীকে নিয়ে অন্য জায়গায় থাকে। সে এখানে আসেনা কোন খরচও দেয় না। উপায় না দেখে অটোরিক্সা চালানো শিখেছি। গত দুই মাস আগে থেকে একটু একটু করে অটো চালানো শিখেছি। এখন রাস্তায় অটো চালাতে পারেন তিনি।

এখন অটোরিক্সা চালানোর টাকা দিয়ে নিজের সংসার চালাচ্ছেন তিনি। এছাড়া সন্তানদের লেখাপড়া চালান। এরমধ্যে মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন এই সংগ্রাম নারী। এখন প্রতিদিন সকালে বেরিয়ে সারাদিন রাবেয়া রাজশাহীর আমচত্বর, নওহাটা, শালবাগান, বায়া এই রাস্তায় অটোরিকশা চালান তিনি।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ দৈনিক সানশাইন