রাজশাহী নগরীতে দুই কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

রাজশাহী

রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী সুরাইয়া হুদা জেমী (১৮) আত্মহত্যা করেছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে নগরীর কলাবাগান এলাকার একটি ভাড়া বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। পুলিশ তার মামার উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, পরিবারের অভিযোগ প্রেমঘটিত কারণে এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখবে পুলিশ।
রামেক হাসপাতাল ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সুরাইয়া সরকারি মহিলা কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ১ম বর্ষের ছাত্রী ও সিরাজগঞ্জ রায়গঞ্জ থানার নিমগাছি এলাকার আব্দুল ওহাবের মেয়ে। তিনি কলাবাগান এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে থেকে পড়াশুনা করতেন। গতকাল বিকালে তিনি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

এ ব্যাপারে বোয়ালিয়া থানার তদন্তকারী পুলিশ অফিসার উপ-পরিদর্শক মাসুদ রানা বলেন, লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে, এবং মৃতের পরিবারকে খবর দেয়া হয়েছে। থানায় মামলা হলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস’া নিবে পুলিশ বলেও তিনি জানান।

এদিকে নগরীর মতিহার থানার ডাসমাড়ির খোজাপুর এলাকায় ইসরাত জাহান শিউলি (২৩) নামে এক প্রবাসী ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে ঝুলন্ত লাশটি উদ্ধার করা হয়। পুলিশের ধারনা, শিউলি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

তিনি ওই এলাকার মৃত ভুগোল আলীর মেয়ে। ভারতের কলকাতার একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স পাস করে বাড়িতে আসেন। কয়েকদিন পর মাস্টার্সে ভর্তি হতে তার কলকাতায় যাওয়ার কথা ছিল।

মতিহার থানার এসআই মাহবুবুর রহমান বলেন, শিউলির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ফরেন্সিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে পবিবারের সদস্যদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়।
শিউলির মেজো বোন হাওয়া বেগম জানান, শিউলি ব্র্যাকের বৃত্তি নিয়ে ভারতের কলকাতায় একটি বিশ্ববিদ্যায়ে পড়াশোনা করে। সেখান থেকে অনার্স পাস করে বাড়িতে আসে। এরপর সে আত্মহত্যা করে। তবে তার আত্মহত্যার কারণ জানা যায়নি।

খবরঃ sonali sangbad

4 thoughts on “রাজশাহী নগরীতে দুই কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

Comments are closed.