রাজশাহী নগরীতে বাড়ি বাড়ি বই পৌঁছে দিচ্ছেন সোহাগ

রাজশাহী

১৯৯৭ সালের শুরুতে ১৮টি বই নিয়ে একটি পাঠাগার নির্মাণ করেছিলেন। ২০ বছর পেরিয়ে সেই পাঠাগারের আয়তন অনেক বেশি। বইয়ের সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়েছে। তার পাঠাগারের স্লোগান হচ্ছে ‘এসো পড়ি-দেশ গড়ি’। তবে এবার পাঠাগারের নির্মাতা সোহাগ আলী নেমেছেন বই পড়ার আন্দোলনে।

বইয়ের পাঠক কমে যাওয়ার কারণে ‘পলান সরকার বই পড়া আন্দোলন’ স্লোগানকে সামনে রেখে তিনি এ আন্দোলনে নেমেছেন। সোহাগ আলী রাজশাহী নগরীর তেরখাদিয়া এলাকার বাসিন্দা ও আলোকচিত্রি।

পাঠাগারের পাশাপাশি এখন পাঠকের বাড়ি বাড়ি বই পৌঁছে দিচ্ছেন তিনি। কোন টাকার বিনিময়ে নয়, সম্পূর্ণ ফ্রি বই এখন পাঠক ইচ্ছে করলেই ঘরে বসে পাচ্ছেন। এছাড়াও ফ্রি পত্রিকা পাঠকদের জন্য নিজস্ব উদ্যোগে রাজশাহী নগরীর লক্ষীপুর এলাকায় গড়ে তুলেছেন পত্রিকা কর্নার। সেখানেও ফ্রি পত্রিকা পড়তে পারেন মানুষ। মানুষকে বইমুখি করতে তিনি এ উদ্যোগ নিয়েছেন।

সোহাগ আলী জানান, বই মানুষকে আলোকিত করে। বই পড়ার কোনো বিকল্প নেই। এ চিন্তাভাবনা থেকে প্রথমে কেন্দ্রীয় কিশোর পাঠাগার স্থাপন করেন নিজ বাড়ির একটি কক্ষে। এখন তিনি ‘পলান সরকার বই পড়া আন্দোলনে’ যুক্ত হয়ে বই বিলাচ্ছেন পাঠকদের ঘরে ঘরে। শুধু তাই নয়, স্কুল-কলেজেও চলছে তার এ কার্যক্রম। পাঠকের চাহিদা অনুযায়ী একজনকে সপ্তাহে তিনটি করে বইয়ের যোগান দেয়া হয়। সাতদিন পর সে বই ফেরত দিয়ে নতুন বই নেন পাঠক। ছোট একটি মোবাইল ম্যাসেজ করেই পাঠক হাতে পাচ্ছেন চাহিদা অনুযায়ী বই। এ প্রক্রিয়ায় এখন তার পাঠকের সংখ্যা তিনশ হয়েছে গত ৬ মাসেই।

খবরঃ ডেইলি সানশাইন

6 thoughts on “রাজশাহী নগরীতে বাড়ি বাড়ি বই পৌঁছে দিচ্ছেন সোহাগ

Comments are closed.