রাজশাহী নগরীতে সাপের ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায়

রাজশাহী

রাজশাহী নগরীর রাস্তায় রাস্তায় সাপ নিয়ে বেদে সম্প্রদায়ের নারীরা চাঁদা উত্তোলন করছেন। কয়েকদিন থেকে চলছে এ ধরনের চাঁদাবাজি।

সোমবার দুপুরেও নগরীর ব্যস্ততম এলাকা সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে দেখা গেছে এ ধরনের দৃশ্য।

বেদে সম্প্রদায়ের এক নারী (৩৫) সাপ নিয়ে চাঁদা তুলছেন। বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষের কাছে টাকা চাইছেন। এর ফলে ছোট-বড় সব বয়সি মানুষ আতঙ্কিত হয়ে উঠছেন। সাপের ভয়ে অনেকে টাকা দিতে বাধ্য হচ্ছেন।

তবে এ নারী টার্গেট করছেন মূলত স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের। গলায় জড়িয়ে রেখে আবার কাঠের ছোট বাক্সের মধ্য থেকে সাপের মাথা বের করছেন। এ সময় সাপ তার জিহ্বান নাড়ানোর কারণে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন মানুষ। চমকে উঠছেন পথচারী ও দোকান মালিকরা। এরপর পথ আগলে দাবি করা হচ্ছে টাকা। চাহিদা মতো টাকা না দিলে ছেলেদের শার্ট আর মেয়েদের ওড়না টেনে ধরা হচ্ছে। ছোট কাঠের বাক্সে সাপ নিয়ে চাঁদাবাজি নতুন নয়, কিন্তু বর্তমানে তা খুব বেশি দেখা যাচ্ছে নগরীতে।

অনেক পথচারী সাপের ভয় থেকে বাঁচতে চাঁদা দিতে বাধ্য হচ্ছেন। নগরীর সাহেববাজার, অলকার মোড়, রানীবাজার, আরডিএ মার্কেট এলাকার সামনে সবচেয়ে বেশি দেখা যাচ্ছে এ নারীকে। লোক বুঝে যার থেকে যেমন টাকা পাচ্ছেন, তা আদায় করছেন।

সোমবার দুপুরে টাকা আদায়ের সময় কয়েকজন মিডিয়াকর্মী ওই নারীর সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেন। তার নাম ও বাড়ি কোথায় জিজ্ঞাসা করা হয়। কিন্তু এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে নারাজ ওই নারী। তবে তিনি জানান, তার স্বামী নেই। ছেলেমেয়ে আছে দুইজন। বেদে সম্প্রদায়ের মানুষ তিনি। আয়-উপার্জনের ভিন্ন কোনো পথ তার জানা নেই। তাই তিনি সাপ দেখিয়ে টাকা নেন। প্রতিদিন তার আয় হয় পাঁচ থেকে ছয়শ টাকা। এ টাকা দিয়েই কোনোভাবে ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে সংসার চালান।

এ বিষয়ে রাজশাহী মহানগর পুলিশের সিনিয়র সহকারী কমিশনার (সদর) ইফতেখায়ের আলম বলেন, নগরীতে বেদে সম্প্রদায়ের নারীদের জোরপূর্বক চাঁদা আদায় করার বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তারা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছেন। এদের চাঁদা আদায়ের বিরুদ্ধে অচিরে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

খবরঃ রাইজিংবিডি

11 thoughts on “রাজশাহী নগরীতে সাপের ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায়

  1. কলেজে যাবার সময় মাঝে মাঝে কয়েকটা মেয়ে সাপ নিয়ে সামনে চলে আসে। সাপ দেখে ভয়ে আমি তাড়াতাড়ি টাকা দেয়। খুব বিরক্ত লাগে। মনি চত্বরে এটা দেখা যায়।

  2. গতকাল সজিব ইলেকট্রনিক্স বড়মসজিদ থেকে ৫টাকা নিয়ে গেছে এই সাপুড়ে মহিলা…..

Comments are closed.