রাবিতে বহিষ্কৃত নেতাদের পক্ষে ছাত্রলীগের মানববন্ধন

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলীকে মারধরের ঘটনায় স্থায়ীভাবে বহিষ্কার হওয়া তিন শিক্ষার্থী​র পক্ষেÿমানববন্ধন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। কারণ ​এই তিনজনই হলেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতা। আজ বুধবার দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে ওই তিন নেতার বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়ার দাবি জানানো হয়।

বহিষ্কৃত তিনজন হলেন ফাইন্যান্স বিভাগের ছাত্র এস এম তৌহিদ আল হোসেন তুহিন, ফিশারিজ বিভাগের ছাত্র তন্ময়ানন্দ অভি ও মামুন-অর-রশীদ। এর মধ্যে ঘটনার দিন রাতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে তৌহিদকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। তবে এখনো বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহসভাপতি হিসেবে তন্ময় ও শহীদ হবিবুর রহমান হলের সভাপতি হিসেবে ও মামুনের নাম রয়েছে।

২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট উপাচার্যের দপ্তরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী সিরাজুম মুনিরকে ছাত্রলীগের ওই তিন নেতা মারধর করেন। এতে তাঁর মাথা ফেটে যায়। ঘটনার দুই দিন পর উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বিশেষ ক্ষমতাবলে জড়িত তিনজনকে সাময়িক বহিষ্কার করে ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেন। তদন্তে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় তাঁদের স্থায়ী বহিষ্কারের সুপারিশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা বোর্ড। গত ২৯ মার্চ শৃঙ্খলা বোর্ডের ওই সিদ্ধান্ত অনুমোদন করে সিন্ডিকেট।

এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে আজ দুপুর ১২টায় আয়োজিত মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক খালিদ হোসেনের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ, ছাত্রবৃত্তি বিষয়ক সম্পাদক টগর মো. সালেহ, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি হাবিবুর রহমান প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, এর আগে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা ফারুক হত্যা, অধ্যাপক এস তাহের হত্যাসহ নানা হত্যাকাণ্ডের মতো ঘটনার সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় শিবিরের নেতা কর্মীরা জড়িত থাকলেও তাঁদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। ছাত্রলীগ নেতারা একটা ভুল করেছেন, এর জন্য তারা ক্ষমাও চেয়েছেন। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাঁদের সেই ভুলে লঘু পাপে গুরুদণ্ড দিয়েছেন। একটা ভুলের জন্য তাঁদের শিক্ষাজীবন ধ্বংস করে দিতে পারেন না।

বক্তারা দ্রুত স্থায়ী বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে ওই তিন ছাত্রলীগ নেতার ছাত্রত্ব ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানান।

প্রথম আলো-http://www.prothom-alo.com/bangladesh/article/821683/%E0%A6%AC%E0%A6%B9%E0%A6%BF%E0%A6%B7%E0%A7%8D%E0%A6%95%E0%A7%83%E0%A6%A4-%E0%A6%A8%E0%A7%87%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AA%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A7%87-%E0%A6%9B%E0%A6%BE%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%B2%E0%A7%80%E0%A6%97%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A6%AC%E0%A6%AC%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A7%E0%A6%A8