রাবিতে বাড়তি নিরাপত্তায় বিদেশি শিক্ষার্থীরা

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) অবস্থানরত বিদেশি শিক্ষার্থী ও গবেষকদের জন্য বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সম্প্রতি দুই বিদেশী নাগরিক হত্যার ঘটনার পর উদ্ভুত পরিস্থিতি এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নিরাপত্তার দিক বিবেচনা করে তাদেরকে একা একা চলাফেরায় নিষেধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিদেশি শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সব ধরনের নিরাপত্তার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর দফতর থেকে নগরীর মতিহার থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর পফেসর ড. তারিকুল হাসান বলেন, দেশে বিদেশি নাগরিক হত্যার ঘটনায় যেকোনো বিদেশি শিক্ষার্থী ও গবেষকের দুশ্চিন্তায় থাকাটা স্বভাবিক।

এজন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে আসা শিক্ষার্থী ও গবেষকদের নিরাপত্তা নিয়ে আমরা সর্বদা সতর্ক রয়েছি। তাদের যাবতীয় নিরাপত্তা দিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রস্তুত রয়েছে। যে কোনো প্রয়োজনে তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করতেও বলা হয়েছে বলে জানান তিনি,তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক বিভাগ ও ইনস্টিটিউটে মোট পাঁচজন বিদেশি শিক্ষার্থী ও গবেষক রয়েছেন।

তারা হলেন, ইনস্টিটিউট অব বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেসের সহকারী গবেষক জাপানি নাগরিক কেনজি সুজি। তিনি বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন নগরীর কাটাখালিতে আশা আলো স্কুলে থাকছেন। ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের নেপালী শিক্ষার্থী জিলানি আনসারী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মীর আব্দুল কাউয়ুম ইন্টারন্যাশনাল ডরমেটরিতে রয়েছেন।

কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের নেপালী শিক্ষার্থী বসন্ত রাজ গিরি। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মীর আব্দুল কাউয়ূম ইন্টারন্যাশনাল ডরমেটরিতে রয়েছেন। এনিম্যাল হাজবেন্ড্রারি অ্যান্ড ভেটেরেনারি সায়েন্স বিভাগের রণজিৎ মল্লিক। তিনিও বিশ্ববিদ্যালয়ের একই ডরমেটরির রয়েছেন।নাট্যকলা ও সঙ্গীত বিভাগের গবেষক ভারতীয় নাগরিক শতাব্দি আচার্য। তিনিও একই ডরমেটিতে আছেন।