রাবিতে মশার উপদ্রব ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

মশা নিধন কীটনাশক স্প্রে ও ড্রেন-নর্দমাগুলো নিয়মিত পরিষ্কার না করার কারণে মশার উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ কর্মচারীদের। এতে ব্যাহত হচ্ছে পড়াশুনাসহ সাধারণ কাজকর্ম করতে। এদিকে মশার উপদ্রব দ্রুত সমাধান করা না গেলে ম্যালেরিয়াসহ ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হতে পারে বলে অভিযোগ করছেন শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৭টি আবাসিক হলের পাশের ড্রেনসহ ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানের নর্দমাগুলোতে ময়লা আবর্জনার স্তুপ জমে থাকায় মশা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর কোন ধরনের মশা নিধন কীটনাশক স্প্রে ব্যবহার না করায় রাতে হলগুলোতে ভোগান্তি পোহাচ্ছে প্রায় ১০ হাজার আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মুন্নুজান হলের আবাসিক শিক্ষার্থী হোসনেয়ারা রিমা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘ সন্ধ্যার পর থেকে রুমের মধ্যে মশার উৎপাত বেড়ে যায়। এমনকি মশারি লাগিয়েও রেহাই পাওয়া যায় না। বিশেষ করে মশার কামড়ে ডেঙ্গু জ্বরে অসুস্থ হয়ে পড়ছে শিক্ষার্থীরা। কিন্তু এখন পর্যন্ত মশা নিধনে কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে না।

এদিকে গণিত বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আওলাদ হোসেন বলেন, ‘মশার উপদ্রবে পড়াশোনা করতে পারছি না। রাতে ঘুমানো যাচ্ছে না। হঠাৎ করেই রাতে মশার উপদ্রবে ঘুম ভেঙে যায়। ক্যাম্পাসের ড্রেন-নর্দমাগুলো নিয়মিত পরিষ্কার না করার কারণেই মশার উপদ্রব বাড়ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক মিজানুর রহমান বলছেন, ‘ইতোমধ্যে সমস্যা সমাধানে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। উপাচার্য স্যারের সঙ্গেও কথা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে সিটি কর্পোরেশন থেকে মশা নিধন কীটনাশক স্প্রে করা হয়। কিছুদিনের মধ্যেই কীটনাশক স্প্রে করা হবে।

খবরঃ দৈনিক সানশাইন