রাবিতে শিবির কর্মীকে হল থেকে বিতাড়িত

রাজশাহী রাজশাহী বিভাগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

শিবির করার অভিযোগ এনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ শামসুজ্জোহা হল থেকে সোহেল রানা নামের এক শিক্ষার্থীকে তাড়িয়েছে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। আজ শুক্রবার দুপুর দুইটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ আমীর আলী হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম সজল ও শাহ্ মখদুম হলের সভাপতি আরিফ বিন জহিরের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী জোহা হলে গিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে তাড়িয়ে দেন।

ছাত্রলীগের দাবি, শিবিরের জোহা হল সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মাধ্যমে ওই শিক্ষার্থীকে হলে ওঠানো হয়েছিল। সোহেল রানা শিবিরের একজন সক্রিয় কর্মী। তবে এ দাবি ভিত্তিহীন দাবি করে শিবিরের জোহা হলের একজন নেতা বলেন, ‘সোহেল রানা একজন সাধারণ শিক্ষার্থী। তিনি শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয়। দরিদ্র পরিববারের ছেলে হওয়ায় আমরা তাকে ওই কক্ষে ওঠার পরামর্শ দিয়েছিলাম মাত্র।’

শামসুজ্জোহা হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা জানান, হলের ১৮১ নম্বর কক্ষে পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী নাজমুল হাসান থাকতেন। কিছুদিন আগে ছাত্রত্ব শেষ হয়ে যাওয়া তিনি
তাঁর সিটটি ছেড়ে দেন। এর পর ওই সিটে আবদুল্লাহ নামের এক শিক্ষার্থী ওঠেন। তবে আবদুল্লাহ বেশির ভাগ সময় তাবলিগে থাকার কারণে ওই সিটটি খালি পড়ে থাকতো। গত ৪-৫ দিন আগে ওই সিটে ওঠেন পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী সোহেল রানা। আজ শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আমীর আলী হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম সজল ও শাহ মখদুম হলের সভাপতি আরিফ বিন জহিরের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন ছাত্রলীগ কর্মী জোহা হলের ১৮১ নম্বর কক্ষে গিয়ে সোহেলকে বের করে দেন।

যোগাযোগ করা হলে ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল ইসলাম সজল দাবি করেন, ‘সোহেল রানা শিবিরের সক্রিয় কর্মী। সে ওই কক্ষে অবস্থান করে নাশকতার পরিকল্পনা করছিল বলে আমাদের কাছে অভিযোগ এসেছে। এ কারণে তাকে হল থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে।’

সূত্রঃবিডি২৪