রাবিতে ৪ জন শিবির কর্মীকে পুলিশে দিয়েছে ছাত্রলীগ

রাজশাহী

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শহীদ হবিবুর রহমান হল থেকে চার শিবির কর্মীকে পিটিয়ে পুলিশে দিয়েছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। সোমবার (৯ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশে দেওয়া শিবির কর্মীরা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ, ম্যানেজমেন্ট বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী রাকিবুল হাসান ও আবু সাঈদ এবং গণিত বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সাদ্দাম।

শহীদ হবিবুর রহমান হলের কয়েকজন আবাসিক শিক্ষার্থী জানান, সোমবার রাত ১১টার দিকে শিবির সন্দেহে হলের ১২৬ ও ১২৭ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ ও রাকিবুলকে ধরে হলের অতিথি কক্ষে নিয়ে আসে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মেহেদি হাসান রাসেল, তন্ময়ানন্দ অভি ও ছাত্রলীগ কর্মী শোয়াইব হোসেন সোহাগের নেতৃত্বে দলটির নেতাকর্মীরা তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে। এসময় আব্দুল্লাহ ও রাকিবুলকে মারধর করা হয়।

পরে ওই দুই শিক্ষার্থীকে সাংবাদিকদের সামনে আনা হয়। এসময় তারা নিজেদের শিবির ‘সমর্থক’ বলে স্বীকার করেন। তাদের হাতে দু’টি ইসলামী বই দেখা যায়।

এরপর তাদের পুলিশের ভ্যানে উঠিয়ে দেওয়া হয়। এ ঘটনার পর রাত ১২টার দিকে হলের ১৪২ ও ৪৩৮ নম্বর কক্ষ থেকে আবু সাঈদ ও সাদ্দাম নামে আরো দুই শিক্ষার্থীকে ধরে আনে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। তাদের একজনের ল্যাপটপে ‘জামায়াতে ইসলামী’ লেখা বই (অনলাইন) পাওয়া যায়। তাদের অতিথি কক্ষে কিছুক্ষণ আটকে রাখার পর পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

রাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মেহেদি হাসান রাসেল বলেন, তারা সবাই শিবির কর্মী। বিভিন্ন সময় তারা নাশকতার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। বিষয়টি জানতে পেরে তাদের ধরে পুলিশে দেওয়া হয়েছে।

মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ূন কবির বলেন, ওই চারজনকে থানায় রাখা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হল প্রাধ্যক্ষ প্রফেসর একরাম উল্যাহ বলেন, চারজন ছাত্রকে পুলিশে দেওয়া হয়েছে বলে শুনেছি। পুলিশ এ ব্যাপারে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে। হলের পরিস্থিতি শান্ত রাখতে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় ভর্তীচ্ছু শিক্ষার্থীদের আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।