রাবির বঙ্গবন্ধু হলের সিলগালা কক্ষে তল্লাশি

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি মিজানুর রহমান রানাসহ তার সহযোগীদের কক্ষে তল্লাশি চালিয়ে প্রায় ১৫/২০টি খালি মাদকের বোতল ও টেপ মোড়ানো একটি বোমা সদৃশ সার্কিট উদ্ধার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর তারিকুল হাসান ও হল প্রাধ্যক্ষ প্রফেসর আশরাফ উজ জামানের উপস্থিতিতে সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এ তল্লাশি চালানো হয়। তবে এ সময় কোনো অস্ত্র পাওয়া যায়নি।

এর আগে শনিবার রাতে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানাকে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়। পরে শনিবার গভীর রাতে গোপনে রানা তার সহযোগীদের নিয়ে হল ছেড়ে পালিয়ে যান। পরে হলের ২২১, ২২২, ২২৪, ২৩২ ও ২৩৩ নম্বর কক্ষ সিলগালা করে দেয় হল প্রশাসন।

সোমবার সকালে সরেজমিন দেখা যায়, ওই কক্ষগুলো থেকে মিজানুর রহমান রানাসহ তার অনুসারীদের ফেলে যাওয়া লেপ, তোষক, কাপড়, মশারি প্রভৃতি প্রক্টরের নির্দেশে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। এ সময় ওই কক্ষগুলো থেকে বেশ কিছু খালি মাদকের বোতল পড়ে থাকতে দেখা যায়।

তল্লাশি শেষে প্রক্টর অধ্যাপক তারিকুল হাসান জানান, হলের কয়েকটি কক্ষ থেকে কিছু মাদকের খালি বোতল উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এ কক্ষ থেকে কোনো অস্ত্র পাওয়া না গেলেও ২২২ নম্বর কক্ষ থেকে লাল টেপ মোড়ানো একটি সার্কিট পাওয়া গেছে।

তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হিসেবে তাদের কক্ষগুলোতে বইপত্র থাকার কথা। কিন্তু তেমনটি হয়নি। ছাত্র নেতাদের রুম থেকে মাদকের বোতল পাওয়া খুবই দুঃখজনক ও অপ্রত্যাশিত।

জানা যায়, হলের ২২১ নম্বর কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মেহেদী হাসান (বহিষ্কৃত) ও ২২২ নম্বর কক্ষে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান পলাশ (বহিষ্কৃত) থাকতেন।

বাংলানিউজ-http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/458425.html