রাবির বাসস্ট্যান্ড অত্যাধুনিক করার পরিকল্পনা

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

বর্ষা মৌসুম এলেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস স্ট্যান্ডে জমে যায় পানি। কাদা পানিতে তখন শিক্ষার্থীদের খাবি খাওয়ার যোগাড় হয়। শুষ্ক মৌসুমে খেতে হয় ধুলাবালি। বাস স্ট্যান্ডের জায়গায় জায়গায় গর্ত হওয়ায় এভাবেই সারা বছর ভোগান্তি পোহাতে হয় শিক্ষার্থীদের। শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে রাবির বাস স্ট্যান্ডকে অত্যাধুনিক করে তোলার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও পরিবহন দপ্তর। ইতোমধ্যেই বাস স্ট্যান্ডের একটি আধুনিক ডিজাইন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিবহন দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক মোহা. মাইনুল হক। এছাড়া পরিবহন খাতে গাড়ি বাড়ানো, নিজস্ব তেল পাম্প, গাড়ি মেরামতসহ নানা কর্মকাণ্ডের কথা জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ২০১৩ সালের মার্চ থেকে ২০১৫ সালের মে পর্যন্ত চারটি বড় বাস, দুটি মাইক্রোবাস ও একটি কার ও ছাত্রী হলগুলোর নিজস্ব অর্থায়নে একটি অ্যাম্বুলেন্স কেনে। এছাড়া ১৬টি পুরাতন বাসের বডি তৈরি ও রংয়ের কাজসহ মাইক্রোবাসের রিকন্ডিশন ইঞ্জিন লাগানো হয়েছে।

আরো জানা যায়, ২০১৫ সালের আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব কোন তেল পাম্প ছিলো না। বাইরে থেকে তেল ক্রয় করে পরিবহন খাত চালানো হতো। বর্তমান প্রশাসন ২০১৫ সালের জুলাই মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে একটি নিজস্ব পাম্পের ডিলারশীপ নেয়।

বদলে যাবে বাসস্ট্যান্ড প্রাঙ্গন: শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা চিন্তা করে বাস স্ট্যান্ড প্রাঙ্গনকে আধুনিক করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। বিখ্যাত গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নিটোল টাটার তত্বাবধায়নে একটি আধুনিক মানের বাসস্ট্রান্ড ডিজাইন প্রস্তুত করা হয়েছে। এই ডিজাইনে বাসস্ট্যান্ড প্রাঙ্গণ সম্পূর্ণ পাকা করা হবে। তবে এখনো বাজেট পাশ হয়নি বলে জানিয়েছেন, পরিবহন দপ্তরের প্রশাসক। তিনি বলেন, পরিকল্পনা মাফিক বাসস্ট্যান্ডটি হলে শিক্ষার্থীদের আর গ্রীষ্ম, বর্ষায় ভোগান্তি পোহাতে হবে না। কারণ, স্ট্যান্ডের গ্রাউন্ডটি সম্পূর্ণ পাকা থাকবে এবং পানি নিষ্কাষণের জন্য পর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়া উপরে ছাউনি দেয়ারও পরিকল্পনা রয়েছে। আর কাজ সম্পন্ন হলে পুরো এলাকাটি দৃষ্টিনন্দন হয়ে উঠবে। এর জন্য বড় অঙ্কের বাজেট দরকার। কাজগুলি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। যত দ্রুত সম্ভব কাজ শুরু করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব তেল পাম্প: ২০১৫ সালের আগে পরিবহন দপ্তরের বাইরের ডিলারের মাধ্যমে তেল কেনা হতো। এতে করে বাড়তি টাকা গুনতে হতো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের। অর্থনৈতিক সাশ্রয়ের কথা চিন্তা করে বর্তমান প্রশাসন ১৫ সালের জুলাই মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে একটি নিজস্ব পাম্পের ডিলারশীপ নেয়। এ প্রসঙ্গে পরিবহন দপ্তরের প্রশাসক বলেন, বাইরের ডিলার থেকে তেল কিনতে গেলে বাড়তি টাকা গুনতে হতো। এতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ক্ষতিগ্রস্থ হতো। পরিবহন ব্যবস্থায় প্রতিমাসে ৯ হাজার লিটার তেল দরকার হয়। যা বাইরে থেকে কিনতে ৯০ হাজার টাকা বেশি গুনতে হতো। বর্তমানে এই অর্থ সম্পূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব খাতে জমা থাকছে।

গাড়ি আছে, দরকার ড্রাইভার: পরিবহন দপ্তরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৮টি গাড়ি আছে। তবে ড্রাইভার ও কন্ট্রাকটার সংকটের কারণে বিভিন্ন রুটে নিয়মিত যাতায়াত করে ২৬টি গাড়ি। দুই শিফটে গাড়ি চালানোর জন্য ৩২ জন ড্রাইভার ও ২৪ জন কন্ট্রাকটার রয়েছে। এ বিষয়ে পরিবহন দপ্তরের সহকারী রেজিস্ট্রার ইসমাঈল হোসেন বলেন, পরিবহন সেক্টর এখন অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে উন্নত। সামনে আরো উন্নয়ন করার পরিকল্পনা রয়েছে। দুই শিফটের জন্য ৫২ জন ড্রাইভার ও ৫২ জন কন্ট্রাকটার নিয়োগ হলে সব গাড়ি সচল থাকতো। এতে শিক্ষার্থীদের সম্পূর্ণ চাহিদা মিটতো।

পরিবহন ব্যবস্থার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেন, দায়িত্ব গ্রহণের সময় পরিবহন দপ্তরের অবস্থা খুবই নাজুক ছিলো। দ্বিতলা বাসগুলো পড়ে ছিলো আমরা সেগুলো চালু করেছি। নষ্ট গড়িগুলো মেরামত করা হয়েছে। এছাড়া তেলের নিজস্ব ডিলারশীপ নেয়ার মাসে ৯০ হাজার টাকা সাশ্রয় হয়।
বাস স্ট্যান্ডকে আধুনিক করার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, টাটা কোম্পানির সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তারা আধুনিক ডিজাইন দিয়েছেন। খুব দ্রুত বাজেট পাশ করে কাজ শুরু করা হবে।

খবরঃ দৈনিক সানশাইন

3 thoughts on “রাবির বাসস্ট্যান্ড অত্যাধুনিক করার পরিকল্পনা

  1. যখন প্রথম বষে ভতি হয়েছিলাম তখন টেন্ডার হইছিল সব জায়গা পাকা করবে।।।।এখন পড়াশুনা শেষ হইতছে বছর খানেক এর কাছাকাছি কোন অগ্রগতি দেখি নাই।।।।।কিছু জায়গায় মাটি ফেলছে আর আর রাস্তাগুলাতে পুরান ইট তুলে আবার সেইগুলাই লাগাইছিল।।।।আর এই প্রশাসন গত এক বছরের বেশি থেকে শুধু দেখতাইছি জোহা স্যারের জায়গায় কিনা করতেছে।।।।আমিও এখনও কনফিউজড যে প্রশাসন আসলে কি করতে চাই।।।ভিসি সাহেব যাওয়ার আগে কিছু কামাইতে চাই। ।।

Comments are closed.