রাবি ছাত্রী সিফাত হত্যাঃ স্বামীসহ তিন জনকে আসামী করে মামলা

রাজশাহী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

sifat

রাজশাহীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের স্নাতকোত্তর ওয়াহিদা সিফাত (২৭) পাঁচ বছর আগে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ হোসেন রমজানের ছেলে মো. আসিফকে।

বেকার আসিফ ব্যবসার জন্য সিফাতারের পরিবারের কাছে ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। এতে সিফাত রাজি না হওয়ায় দিনের পর দিন তার ওপর চলতে থাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। শেষ পর্যন্ত এই যৌতুকের কারণেই প্রাণ দিতে হয়েছে সিফাতকে। ২৯ মার্চ রাতে স্বামীর বাসা থেকে সিফাতের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এঘটনায় বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) একটি হত্যা মামল‍া করেছেন ওয়াহিদা সিফাতের চাচা মিজানুর রহমান খন্দকার। মামলায় সিফাতের স্বামী মো. আসিফসহ তিনজনকে আসামি করা হয়েছে। অন্য আসামিরা হলেন, সিফাতের শ্বশুর মোহাম্মদ হোসেন রমজান ও শাশুড়ি নাজমুন নাহার নাজলী।

আরএমপির রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, গৃহবধূ ওয়াহিদা সিফাতের মৃত্যুর ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে থানায় মামলা হয়েছে। এসআই শরীফুল ইসলামকে মামলার তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

ওসি মেহেদী হাসান বলেন, আটক সিফাতের স্বামী মো. আসিফকে এই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হবে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
মৃতদেহের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে, সিফাতের মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। নিহতের পরিবারের দাবি, আত্মহত্যা নয় সিফাতকে মারধর করা হয়েছে।