রাবি বিভাগের কার্যক্রম থেকে প্রত্যাহার জলির সাবেক স্বামী

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় তার সাবেক স্বামী বিভাগের আরেক সহযোগী অধ্যাপক তানভীর আহমদ বিভাগের কার্যক্রম থেকে সাময়িকভাবে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার(২২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বিভাগের একাডেমিক সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সভাসূত্রে জানা যায়, সভায় আকতার জাহানের অস্বাভাবিক মৃত্যুর বিষয়ে শিক্ষকদের আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে তানভীর আহমদ বিভাগের কার্যক্রম থেকে নিজেকে সাময়িকভাবে প্রত্যাহারের প্রস্তাব দেন। পরে তা সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। এছাড়া আকতার জাহানের অস্বাভাবিক মৃত্যুর বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে তদন্ত করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারকে বিভাগের পক্ষ থেকে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে সভায়।

গত ৯ সেপ্টেম্বর বিকেলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জুবেরি ভবন থেকে নিজ কক্ষের দরজা ভেঙে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহানের (৪৫) মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। পরদিন তার ছোট ভাই মতিহার থানায় অজ্ঞাতপরিচয় আসামি করে আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। তানভীর আহমদের সঙ্গে আকতার জাহানের চার বছর আগে বিয়ে বিচ্ছেদ হয়। এরপর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জুবেরি ভবনের আবাসিক কক্ষে একাই বাস করতেন আকতার জাহান।

বিকেলে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতি ড. প্রদীপ কুমার পাণ্ডে স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘আকতার জাহানের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে তার সাবেক স্বামী ও বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তানভীর আহমদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠেছে তার পরিপ্রেক্ষিতে এবং বিভাগের শিক্ষকদের সর্বসম্মত মতামতের ভিত্তিতে তানভীর আহমদ বিভাগের সব কার্যক্রম থেকে সাময়িকভাবে নিজেকে প্রত্যাহার করার প্রস্তাব দেন। সভায় বিষয়টি সর্বসম্মতভাবে গ্রহণ করা হয়।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, আকতার জাহানের নামে বিভাগের সেমিনার লাইব্রেরিটির নামকরণ, বিভাগের সামনে তার নামে ‘আকতার জাহান কর্নার’ স্থাপন ও বিভাগে একটি শোকবই খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে সভায়।

সভায় আকতার জাহানের অকালমৃত্যুকে সামনে রেখে বিভাগের পক্ষ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর শোকর‌্যালি ও শোকসভা করা হবে। এছাড়া শুক্রবার থেকে তিনদিন বিভাগে কালোব্যাজ ধারণ কর্মসূচিও পালন করা হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আকতার জাহানের মৃত্যুর পর তার পরিবারের পক্ষ থেকে ‘আত্মহত্যার প্ররোচনার’ অভিযোগে মতিহার থানায় যে মামলা করা হয়েছে তা তদারকি করার জন্য বিভাগের সভাপতিকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি নিয়মিতভাবে মামলার অগ্রগতি বিভাগকে অবহিত করবে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিভাগের সভাপতির কক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

খবরঃ বাংলানিউজ