রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ জনের মৃত্যু

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জয়পুরহাট নওগাঁ নাটোর পাবনা রাজশাহী রাজশাহী বিভাগ

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (৫ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার (৬ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ের মধ্যে তারা মারা যান।

এর আগের দিন এ হাসপাতালে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

ফলে একদিনের ব্যবধানে আবারও মৃত্যু বাড়লো রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শামীম ইয়াজদানী জানান, মৃত ১৯ জনের মধ্যে চারজন করোনা পজিটিভ ছিলেন। আর ১৫ জন ভর্তি ছিলেন উপসর্গ নিয়ে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে রাজশাহী জেলারই ১০ জন রোগী রয়েছেন। এছাড়া একজন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার, নাটোর জেলার দু’জন, নওগাঁ জেলার দু’জন, পাবনা জেলার একজন, কুষ্টিয়া জেলার একজন, চুয়াডাঙ্গা জেলার একজন ও জয়পুরহাট জেলার একজন রোগী ছিলেন।

রামেক হাসপাতালে এ ছয় দিনে মোট ১০০ জনের মৃত্যু হলো। এছাড়া গত জুনে ৪০৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ রোগী ছিলেন ১৮৯ জন।

অন্যরা করোনা উপসর্গ নিয়ে এ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৬ জন নতুন রোগী রামেক হাসপাতালে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে রাজশাহীর ৪৫ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সাতজন, নাটোরের পাঁচজন, নওগাঁর চারজন, পাবনা জেলার নয়জন, চুয়াডাঙ্গা জেলার দু’জন, বগুড়ার দু’জন, খুলনার একজন ও লালমনিরহাটের একজন নতুন রোগী রয়েছেন। বর্তমানে ৪৮৯ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবে রামেক হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার জন্য বিশেষায়িত শয্যা সংখ্যা ৪০৫টি।

এদিকে সোমবার (৫ জুলাই) রাজশাহীর দু’টি পিসিআর ল্যাবে মোট ৭৭২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ২০১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনা শনাক্তের হার রাজশাহী জেলায় প্রায় দুই সপ্তাহ পর আজ ৩৩ দশমিক ৮৩ শতাংশ থেকে কমে ২০ দশমিক ৩ শতাংশে নেমেছে। আর চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা শনাক্তের হার ২৯ দশমিক ৪৭ শতাংশ থেকে আরও কমে ১৮ দশমিক ৫২ শতাংশে এসেছে। করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ রোধে রাজশাহীতে গত ১১ জুন থেকে বিশেষ লকডাউন চলমান আছে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজ