লাল-সবুজের বর্ণিল আলোয় উদ্ভাসিত রাজশাহী

রাজশাহী

জোনাকির মত ছোট ছোট বাতিগুলো একই তারে গাঁথা। সেখান থেকেই ছড়াচ্ছে রঙিন আলোর দ্যূতি। লাল-সবুজের সেই বর্ণিল আলোয় উদ্ভাসিত হয়ে উঠেছে রাজশাহী। এ যেনো অন্য এক নগর, ভিন্ন এক বিজয় উৎসব।

যেখানে ধর্ম-বর্ণ, ধনী-গরীব সবাই মিশে একাকার হয়ে গেছে।

হ্যাঁ, স্বাধীনতার ৪৫ বছর পূর্তিতে বিজয়ের আলোয় নিজেদের ভাসিয়ে বাঙালির শৃঙ্খলমুক্ত হওয়ার দিনটি এভাবেই প্রাণভরে উদযাপন করছেন সবাই। গৌরব আর অহংকারের এ দিনে বিজয়ের আলোয় আলোকিত হয়ে উঠেছে পদ্মাপাড়ের রাজশাহী।

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজশাহী নগরী জুড়ে চোখ ধাঁধানো আলোকসজ্জা করা হয়েছে এবার।

বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা থেকে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি স্থাপনায় আলোকসজ্জিত করা হয়েছে। বর্ণীল সাজে সেজেছে সড়ক মোহনাগুলো।

সন্ধ্যা হলেই আলোকসজ্জা দেখার জন্য হাজারো মানুষ ছুটে আসছেন নগরীতে। আর শহরের মানুষগুলো তীব্র শীত উপক্ষো করে মোটরসাইকেল, রিকশা ও অটোরিকশায় করে ঘুরে ঘুরে বর্ণিল আলোকসজ্জা দেখে বেড়াচ্ছেন। এ যেনো অন্যরকম পুলক।

ক্যাম্পাসের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা রাজশাহী কলেজের ছাত্রী ফাতেমা ইয়াসমিন পাখি জানান, বিজয় দিবস এবার অন্যরকম এক আবহে উদযাপন করছেন তারা। মুক্তিযুদ্ধ না দেখলেও তার প্রকৃত ইতিহাস আজ তাদের সামনেই রয়েছে।

আজ বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন। ১৯৭১ সালে এ দিনে পাকিস্তানি দখলদার বাহিনীকে পরাস্ত করে বিশ্বের মানচিত্রে সৃষ্টি হয়েছিল নতুন একটি সার্বভৌম দেশ, বাংলাদেশ। তাই যুদ্ধ না দেখলেও পরাধীনতার হাত থেকে মুক্তির যে কী স্বাদ এই আনন্দ-উৎসবের মধ্যেই তার অনুভূতি মিলছে বলে জানান তিনি।

এদিকে, শহর ঘুরে দেখা গেছে বিজয় দিবস উপলক্ষে চারিদিকেই যেন লাল-সবুজের আলোর বন্যা বইছে। রাজশাহীর শহীদ কামারুজ্জামান চত্বর, নগর ভবন, রেলভবন, রেলওয়ে স্টেশন, চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রিজের ভবন, রাজশাহী কলেজ, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ, নিউ গভ: ডিগ্রি কলেজসহ বিভিন্ন সড়কারি ও বেসরকারি ভবনে আলোকসজ্জা শোভা পাচ্ছে। অপরূপ রূপে সেজেছে রাতের নগরী।

খবরঃ বাংলানিউজ