শনিবার সারা দেশে ২৪ ঘণ্টার জন্য বন্ধ সিএনজি স্টেশন

জাতীয়

শুক্রবার দিবাগত রাত বারোটা থেকে শনিবার দিবাগত রাত বারোটা পর্যন্ত (২৪ ঘণ্টা) সারা দেশের সিএনজি (রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস) ফিলিং স্টেশনগুলো বন্ধ রাখার নির্দেশনা জারি করেছে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ।

নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণের অংশ হিসেবে ওইদিন বিবিয়ানা গ্যাস ফিল্ডের উৎপাদন বন্ধ থাকার প্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত বলে জানা গেছে। বিবিয়ানা থেকে গ্যাস উত্তোলন করছে বহুজাতিক জ্বালানি প্রতিষ্ঠান শেভরন বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মীর আসলাম উদ্দিন এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ওই সময় বিবিয়ানা ফিল্ড থেকে গ্যাস উৎপাদন বন্ধ থাকবে। তাই দেশের বিদ্যুতের উৎপাদন স্বাভাবিক রাখতে সিএনজি স্টেশন বন্ধের এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশের সকল সিএনজি স্টেশনে ঈদের দিন শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ১২টা থেকে পরদিন শনিবার দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত এই ২৪ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে দেশের গ্যাস ক্ষেত্রগুলো থেকে দৈনিক ২ হাজার ৭’শ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন করা হচ্ছে। এর মধ্যে  শেভরন বাংলাদেশের বিবিয়ানা গ্যাস ফিল্ডের ২৪টি কূপ দিয়ে দৈনিক ১২’শ ১০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন করা হচ্ছে, যা মোট উত্তোলনের মোট ৪৫ শতাংশ। অথচ দেশের সিএনজি খাতে ব্যবহৃত হয় মাত্র ৬ শতাংশ গ্যাস। এ পরিস্থিতিতে বিবিয়ানা ফিল্ডের উৎপাদন বন্ধ হলে শুধু সিএনজি স্টেশনে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে সংকট মোকাবেলা কতখানি সম্ভব তা নিয়ে প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।

তবে পেট্রোবাংলা সূত্র জানিয়েছে, ঈদের সময় অধিকাংশ শিল্প কারখানা বন্ধ থাকবে। ফলে ক্যাপটিভ পাওয়ারে ব্যবহৃত ১৭ শতাংশ গ্যাসের চাহিদা কমে যাবে। এ ছাড়া ঈদ ‍উপলক্ষে লোকজন রাজধানী ছেড়ে যাওয়ায় আবাসিকে ব্যবহৃত গ্যাসের চাহিদাও কমে যাবে। যে কারণে সংকট খুব বেশি হবে না বলে আশা করছে পেট্রোবাংলা। দেশে আবাসিক খাতে ব্যবহৃত হয় মোট গ্যাস সরবরাহের ১২ শতাংশ।

1 thought on “শনিবার সারা দেশে ২৪ ঘণ্টার জন্য বন্ধ সিএনজি স্টেশন

Comments are closed.