শিক্ষকদের গবেষণায় সহায়তাকারী শিক্ষার্থীরাও পাবেন ভাতা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) শিক্ষকদের গবেষণাকাজে তথ্য সংগ্রহে সহায়তাকারী শিক্ষার্থীদের জন্য সম্মানী ভাতার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

গবেষণা প্রকল্প পরিচালকদের জন্য প্রণোদনার ব্যবস্থা রেখে গবেষণাকাজের জন্য প্রণীত নীতিমালা সংশোধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক-২ শাখার উপ-রেজিস্ট্রার আকতার হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সংশোধিত নীতিমালা সূত্রে জানা গেছে, নীতিমালার ৫ নম্বর ধারায়-প্রকল্প পরিচালক কোনো সম্মানী পাবেন না’ এর পরিবর্তে প্রকল্পের গবেষণাকাজ পরিচালনার জন্য প্রকল্প পরিচালক সম্মানী হিসেবে এক মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ পাবে তবে তা ৫০ হাজারের ঊর্ধ্বে নয়। প্রকল্পটি শেষ হওয়ার পর ২য় কিস্তিতে সম্মানী ছাড় করা হবে।

এছাড়া ৬ নম্বর ধারায় উপাত্ত সংগ্রহকারীকে ছয় মাসের জন্য নিয়োগ করা যাবে। তাকে তিন হাজার টাকা পারিশ্রমিক প্রদান করা যাবে রেখে নীতিমালা সংশোধন করা হয়েছে।

পরিবর্তিত নীতিমালা সম্পর্কে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-রেজিস্ট্রার আকতার হোসেন বলেন, প্রকল্পে সম্মানীর ব্যবস্থা না থাকায় প্রকল্প সমন্বয় করতে অনেক দেরি হচ্ছে।

যাতে সঠিক সময়ে গবেষকরা তাদের গবেষণা শেষ করেন সেই কথা চিন্তা করে গবেষকদের জন্য প্রণোদনার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তবে কোনো গবেষক নিয়মমাফিক গবেষণা শেষ না করলে তাকে এই অর্থ থেকে বঞ্চিত করা হতে পারে বলে জানান তিনি।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজ২৪