সরকারের ক্ষমা চাওয়া উচিৎ কামারুজ্জামানের পরিবারের কাছে : ডা. জাফরুল্লাহ

জাতীয়

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের বিরোধিতা করি না। জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানের মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পরও ফাঁসির দড়িতে ২০ মিনিট ঝুলিয়ে রেখে সরকার মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছে। মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে সরকারের উচিৎ কামারুজ্জামানের পরিবারের কাছে ক্ষমা চাওয়া।

তিনি বলেন আধুনিক যুগে একজন ফাঁসির আসামির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে সময় লাগে মাত্র দেড় মিনিট।
আজ রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) আয়োজিত গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার পুনরুদ্ধার, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদসহ সব রাজবন্দীর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নি:শর্ত মুক্তি এবং সুষ্ঠু অবাধ ও গ্রহণযোগ্য সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দাবীতে চিকিৎসক সমাবেশে তিনি একথা বলেন।

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ও আদর্শ ঢাকা আন্দোলনের প্রধান ড. এমাজ উদ্দিন আহমেদ, বিএফইউজে সভাপতি শওকত মাহমুদ, বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক রুহুল আমীন গাজী, ঢাকা সিটি করপোরেশন দক্ষিণের মেয়র প্রার্থী মির্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজা আব্বাস, ড্যাব মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রোভিসি অধ্যাপক আব্দুল মান্নান ড্যাবের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোস্তাক রহিম স্বপন, যুগ্ম-মহাসচিব ডা. এস এম রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. শামছুল আলম সেলিম, জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দলের মহাসচিব রফিকুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা ডাক্তার আব্দুল কুদ্দুস, ড্যাবের সহসভাপতি অধ্যাপক সিরাজ উদ্দিন, বিএসএমএমইউ ড্যাবের সভাপতি ডা. সাইফুল ইসলাম সেলিম প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন ড্যাব সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কে এম আজিজুল হক।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আরো বলেন, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির শেষ ইচ্ছা পুরণ করা হয় এটাই সভ্য সমাজের রীতি। ‘শুক্রবারে যেন ফাঁসি দেয়া হয়’ কামারুজ্জামানের এ শেষ ইচ্ছাটুকুও সরকার পুরণ হতে দেয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.