সুখী সংসার গড়া হয়নি বাঘার বাবলি আক্তারের

বাঘা রাজশাহী

বিয়ে হয়েছে তিন বছর হলো বাবলি আক্তারের (২৫)। নববধূ সেজে স্বামীর ঘরে এসে চেয়েছিলেন সুখের সংসার গড়তে। কিন্তু না তার সেই আশা পূর্ণ হয়নি। বিয়ের কিছুদিন পরই যৌতুকের জন্য নানাভাবে তার ওপর শুরু হয় নির্যাতন। অবশেষে স্বামীর হাতেই তাকে দিতে হলো প্রাণ। পরে আত্মহত্যা করেছে বলে চালিয়ে দিতে মৃত স্ত্রীর মুখে বিষ ঢেলে দেন স্বামী। এমনই ঘটনা ঘটেছে রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় বুধবার রাত সাড়ে আটটার দিকে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাবলু হোসেন বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

বৃহস্পতিবার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে। হত্যার অভিযোগে ওই রাতেই তার স্বামী মিজানুর রহমানকে (২৮) গ্রেপ্তার করে বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে বলেও জানায় পুলিশ। নিহত বাবলি উপজেলার আড়ানী কুশাবাড়িয় গ্রামের বাবলু হোসেনের মেয়ে। মিজানুর পার্শ্ববর্তী হামিদকুড়া গ্রমের আবু সাহিদ হোসেনের ছেলে।

বাঘা থানার তদন্ত কর্মকর্তা আবদুস সবুর জানান, বছর তিনেক আগে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তার স্বামী কারণে-অকারণে যৌতুকের জন্য বাবলির উপর নির্যাতন করত। বুধবার রাত সাড়ে আটটার দিকে ব্যাপক মারপিট ও নির্যাতন করে তাকে হত্যা করে।
পরে মুখে বিষ ঢেলে আত্মহত্যা করেছে মর্মে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা চালায়। এছাড়া তার শরীরে বিভিন্নস্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলেও তিনি জানান।

1 thought on “সুখী সংসার গড়া হয়নি বাঘার বাবলি আক্তারের

Comments are closed.