সুন্দরবনের বাঘ এখন রাজশাহী কলেজে

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী কলেজ

বাঘ আমাদের গর্ব, বাঘ সুরক্ষা করবো”এই স্লোগানকে সামনে রেখে রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে বাঘ সংরক্ষণ সুন্দরবন ও জীব ও বৈচিত্র রক্ষায় তথ্যমূলক এক পথনাটক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার সকালে রাজশাহী কলেজের রবীন্দ্র নজরুল চত্বরের সামনে সুন্দরবনের বাঘ সংরক্ষণে এ তথ্যমূলক পথনাটকটি অনুষ্ঠিত হয়।

বাঘ এর প্রতিকৃতি সম্বলিত একটি ক্যারাভ্যান সারাদেশ ঘুরে ঘুরে মানুষের মধ্যে বাঘ বাঁচানোর বার্তা পৌঁছে দিচ্ছে। ক্যারাভ্যান প্রদর্শনীর সাথে একটি পথনাটক প্রদর্শনী হচ্ছে। যার মাধ্যমেও বাঘ বাঁচানোর জন্য জনসচেতনতা বাড়ানোর বার্তা প্রচার করা হচ্ছে।

সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিরাও বিভিন্ন স্থানে এই প্রদর্শনীতে উপস্থিত থেকে তাদের সমর্থন জ্ঞাপন করছেন।

টাইগার ক্যারাভ্যান একটি বাঘ আকৃতির বাস যার ভিতরে সুন্দরবনের গাছ, বাঘ, হরিণ, বানর, কুমির, পাখি ইত্যাদির মাধ্যমে সুন্দরবনের একটি প্রতিকৃতি ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

এ সম্পর্কে আগত দলের সদস্যরা জানান, বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়, ইউএসএইড ও ওয়াইল্ড টিম বাংলাদেশের জাতীয় সম্পদ আমাদের জাতীয় প্রাণি বাঘ সংরক্ষণকল্পে একটি জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।

এদিকে, বন মন্ত্রণালয় ও ইউএসএইড যৌথভাবে বাঘ রক্ষায় জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রচার শুরু করেছে। একটি বাসকে টাইগার ক্যারাভ্যানে রূপ দিয়ে দেশব্যাপি শিক্ষার্থীদের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে, বাঘ আমাদের গর্ব, বাঘ সুরক্ষা করব স্লোগান। কীভাবে বাঘের সংখ্যা হ্রাস পাচ্ছে ছবি ও অভিনয়ের মাধ্যমে তা তুলে ধরছেন প্রচারদলের সদস্যরা। নাটকের মাধ্যমে বাঘ রক্ষায় করণীয় সম্পর্কেও উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।

“বাঘ বাঁচলে বাঁচবে বন, রক্ষা পাবে সুন্দরবন” এই স্লোগানকে ধারণ করে নাটকের কথোপকথনে জানানো হয়, মানুষ বাঘের প্রধান শিকার হরিণ মেরে ফেলছে। এতে বাঘের খাবার কমে যাচ্ছে। শিকারের সন্ধানে ক্ষুধার্ত বাঘ নদী পেরিয়ে চলে আসছে লোকালয়ে। সেখানে মারা যাচ্ছে বাঘ মানুষের হাতে।

২০১০ সালে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা ছিল ৩৬০ থেকে ৪০০টি। এখন তা কমে এসে দাঁড়িয়েছে ১০৬টিতে। নানা কারণে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে। বাঘের বিলুপ্তিরোধে উদ্যোগী হয়েছে বন বিভাগসহ বিভিন্ন সংগঠন।

খবরঃ ক্যাম্পাসলাইভ২৪