স্বল্প মূল্য ও প্রাচীন চেহারাই যে ফোনের বৈশিষ্ট্য

তথ্য প্রযুক্তি

মাইক্রোসফট সম্প্রতি দু’ দুটি ফোন বাজারে আনার ঘোষণা দিয়েছে। এ ফোন দু’টি হলো নোকিয়া ২৩০ ও এর ডুয়েল সিম সংস্করণ।

এ দু’টি ফোনের একটিও স্মার্টফোন নয় বরং তা একটি সাধারণ ডিভাইস। এই হ্যান্ডসেটগুলোতে ব্যবহার করা হয়েছে এক সময়ের জনপ্রিয় ৩০+ সিরিজের মতো কি বোর্ড। স্বল্পমূল্যের এই ফোনে আছে সত্যিকারের কি বা বোতাম। এই নোকিয়া ২৩০ ফোন দু’টি আমাদের বয়স্ক ব্যবহারকারী যারা স্মার্ট কৌশল ব্যবহারে স্বাচ্ছন্দ নন, কিন্তু অতি সহজ পদ্ধতি অনুসরণ করে মোবাইল ফোন দিয়ে কাজ সারতে চান তাদের জন্যে ভীষণ উপযুক্ত ।
দু’টি ফোনই ধাতুতে তৈরি। পুরো ডিভাইসটি ধাতব না হলেও অন্তত এর পেছনের আবরণ ধাতু দিয়ে তৈরি করা হবে। মাইক্রোসফট উৎপাদন করলেও এ গুলির ডিজাইন হবে সুপরিচিত নোকিয়া ব্র্যান্ডের ফোনেরই মতো।

নোকিয়া ২৩০ ফোনের ২.৮ ইঞ্চি আকারের স্ক্রিন হবে ২৪০ * ৩২০ রেজ্যুলুশনযুক্ত । ১৬ মেগাবাইটের ফোন দু’টিতে থাকবে ২ মেগা পিক্সেলের মূল ক্যামেরা ও সেলফি ক্যামেরা। এই দু’টি ক্যামেরাতেই থাকবে এলইডি ফ্ল্যাশ যেগুলি অল্প আলোতে ভালো ছবি তোলার নিশ্চয়তা দেবে। যদিও পুরোনো চেহারার ফোন তবুও এগুলোতে আগে থেকেই কিছু অতি জরুরী কয়েকটি অ্যাপ প্রিলোড করা থাকবে। এই সব অ্যাপের মধ্যে আছে অপেরা মিনি ব্রাউজার, বিং সার্চ এবং আরো আছে এমএসএন ওয়েদার।

কানেক্টিভিটির কথা বলতে গেলে এতে আছে ডুয়েল-ব্যান্ড ৯০০ মেগাহার্টজ/১৮০০ মেগাহার্টজ জিএসএম এর সমর্থন, ব্লুটুথ ৩.০, এবং এফ এম রেডিও শোনার সুবিধা।

২০১৫ এর ডিসেম্বর মাসেই ফোন দু’টি ইন্ডিয়া, এশিয়া ও মধ্য প্রাচ্যের বাজারে কিনতে পাওয়া যাবে। কর ও ভর্তুকি বাদ দিয়ে নোকিয়া ২৩০ ফোনের মূল্য ধরা হয়েছে ৫৫ ডলার ( প্রায় চার হাজার টাকা) মাত্র।