স্বামীর পাশে শায়িত হলেন জাহানারা

রাজশাহী

মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ এএইচএম কামরুজ্জামানের পাশে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন তার সহধর্মিণী জাহানারা জামান।

মঙ্গলবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) বাদ যোহর কাদিরগঞ্জের পারিবারিক কবরস্থানে তকে সমাহিত করা হয়।

এর আগে রাজশাহীর শাহ মখদুম (রহ.) কেন্দ্রীয় ঈদগাহে তার জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে।

শহীদ এএইচএম কামরুজ্জামানের কাদিরগঞ্জের পৈত্রিক বাড়ি থেকে দুপুর ২টায় জাহানারা জামানের মরদেহ কেন্দ্রীয় ঈদগাহে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে দুপুর আড়াইটায় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। বেলা সোয়া ৩টায় তার দাফন কাজ সম্পন্ন হয়।

জানাজায় ইমামতি করেন তার স্বামীর প্রতিষ্ঠিত কাদিরগঞ্জ বাইতুল আমান জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মো. বারকুল্লাহ বিন দুরুল হুদা।

জানাজায় জাহানারা জামানের ছেলে ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী, রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক, রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল ওয়াদুদ দারা, রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার, রাজশাহীর অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মনির হোসেন, রাজশাহী জেলা প্রশাসক কাজী আশরাফ উদ্দীন, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র নিযাম উল আযীম, বিএনপির উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনুসহ সর্বস্তরের মানুষজন।

এর আগে মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে বিমান বাহিনীর একটি হেলিকপ্টারে করে জাহানারা জামানের মরদেহ ঢাকা থেকে রাজশাহী আনা হয়।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি (রোববার) দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে রাজধানীর গুলশানের নিজ বাড়িতে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর।

জাহানারা জামান দীর্ঘ দিন থেকে ডায়াবেটিকসহ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন।

খবরঃ বাংলানিউজ