স্বেচ্ছাসেবী কর্মীকে পেটালো রাবির ছাত্রলীগ কর্মী

রাজশাহী রাজশাহী বিভাগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

পূর্ব শত্রুতার জেরে পথ শিশুদের নিয়ে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইচ্ছের এক কর্মীকে পিটিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা ছাত্রলীগের এক কর্মী। শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাকসু ভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার অর্থনীতি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী পরাগ সাকলাইনকে গুরুতর আহতাবস্থায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (রামেক) ৮নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগকর্মী শরিফুল ইসলাম পিয়াসও একই বর্ষের ছাত্র। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাকসু ভবনের পেছনে পরাগকে ডেকে নেয় তার বন্ধু পিয়াস। সেখানে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সে পরাগকে বেধড়ক মারপিট শুরু করে। এতে পরাগের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুরুতর জখম হয়। পরে রাকসু ভবনে থাকা সাংস্কৃতিক কর্মীরা রক্তাক্ত অবস্থায় পরাগকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে নিয়ে যায়। রাত ৮টা পর্যন্ত তার পরাগের সংজ্ঞা ফেরেনি বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

ছাত্রলীগের কর্মী নয় উল্লেখ করে শরিফুল ইসলাম পিয়াস বলেন, ‘পরাগ ও তার বান্ধবী মিলে আমার বাসায় আমার নামে উল্টা-পাল্টা বিভিন্ন মিথ্যা কথা বলেছে। এ বিষয় নিয়ে কথা বলার একপর্যায়ে মারধর করি। এসময় পরাগও আমাকে মারধর করে।’

এ ব্যাপারে পরাগের বান্ধবী বলেন, ‘ছোট একটি ঘটনা নিয়ে পিয়াস কয়েকদিন ধরে আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে আসছিল। এ ব্যাপারে তাকে নিষেধ করতে গেলে সে পরাগকে প্রচন্ড মারধর শুরু করে। পরাগের অবস্থা এখন আশংকাজনক। এ ব্যাপারে প্রক্টরের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তারিকুল হাসান বলেন, ‘ঘটনা শুনেছি। লিখিত অভিযোগ দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সূত্রঃ রাইজিংবিডি