হৃদয়ে তার গাঁথা ছিল টুথপিক!

বিচিত্র

হৃদয়ে ব্যথা থাকতে পারে। থাকতে পারে প্রিয়জনের অবহেলার কাঁটা। তাই বলে কি আস্ত একটা টুথপিক! হ্যাঁ, এক লোকের হৃৎপিণ্ডের ভেতর সেটাই পাওয়া গেছে।

বছরখানেক আগে অ্যাপেটাইজার খাওয়ার বাতিকে পেয়েছিল তাকে। তখনই বেখেয়ালে কখন যে একটা আস্ত টুথপিক গিলে ফেলেছিলেন সেটা নিজেও টের পাননি। প্রচণ্ড বুকব্যথা নিয়ে শরণাপন্ন হলেন চিকিৎসকদের। চিকিৎসকরা এক পর্যায়ে ওই লোকের হৃৎপিণ্ডে অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নিলেন। এরপর চললো দীর্ঘ ৭ ঘণ্টার এক জটিল অস্ত্রোপচার। এক পর্যায়ে দেখা গেল লোকটার হৃৎপিণ্ডে সুঁচালো আর লম্বা কিছু একটার অস্তিত্ব। ওটা আসলে ছিল আস্ত একটা টুথপিক। ওটা তার হৃৎপিণ্ড এফোঁড়-ওফোঁড় করে গেঁথে ছিল। অস্ত্রোপচারটা সফল হওয়ায় ওই লোক এ-যাত্রা প্রাণে বেঁচে গেছে। এ নিয়ে পত্রিকার শিরোনাম: ‘Surgeons discover man’s ‘stabbing heart pains’ were caused by TOOTHPICK he swallowed a year before’

ওই লোকের নাম হোরাসিও রদ্রিগেস। বয়স ৪২ বছর। হোরাসিও এর আগেও একবার গায়ে প্রচণ্ড জ্বর নিয়ে ডাক্তারের কাছে গিয়েছিলেন। কিন্তু তখন ডাক্তাররা ভুল করে তার নিউমোনিয়া হয়েছে বলে ধরে নিয়ে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করান। সেটা এ বছরের জানুয়ারি মাসের ঘটনা। কিন্তু কিছুতেই তার শরীর আর ভালো হচ্ছিল না। এক পর্যায়ে তারা তাকে জানালেন যে তার হৃৎপিণ্ডে জীবাণু সংক্রমণ হয়েছে। এরপর তাকে দেওয়া হলো অ্যান্টিবায়োটিক। কিন্তু এতেও অবস্থার কোনো উন্নতি হয়নি। বরং তার কাশিতে দেখা গেল রক্ত, ওজন দিনকে দিন যাচ্ছিল কমে আর সেইসঙ্গে বাড়ছিল অসহ্য বুকের ব্যথা। এভাবে অনেক দিন চলে গেল। অবশেষে কিছুদিন আগে ডাক্তাররা ভাবলেন ওই লোকের হৃৎপিণ্ডে কিছু একটা আছে যা এসব শারীরিক বিপত্তির মূলে। এরপর তারা অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্তটা নিলেন। হোরাসিও রদ্রিগেস আর্জেন্টিনার বাসিন্দা।

অস্ত্রোপচারের পর হোরাসিও এখন দ্রুত সেরে উঠছেন।