১০ টাকার চাল পেলোনা পবার ২ গ্রামের আদিবাসিরা

পবা রাজশাহী

পবার হুজরীপাড়া ইউনিয়নের ঘী-পাড়া ও ঠাকুরপাড়ার ১২০টি ভূমিহীন আদিবাসি পরিবার ১০ টাকা কেজির ফেয়ার প্রাইজের কার্ড থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। এই পরিবারগুলো তাদের দৈন্যতার কথা বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস’া নিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে আবেদন করেছেন।

আবেদন সুত্রে জানা গেছে, পবা উপজেলার হুজরীপাড়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ঘী-পাড়া ও ঠাকুরপাড়ায় ১২০টি ভূমিহীন আদিবাসি পরিবার বসবাস করে। এই পরিবারগুলোর বাড়ি ছাড়া কোন জমিজমা নেই। তারা মানুষের জমিতে দিনমজুরের কাজ করে কোন রকমে জীবিকা নির্বাহ করে। সমপ্রতি সরকার ১০ টাকা কেজিতে দুস’্যদের মাঝে চাল বিতরনের উদ্যোগ নিলে এই আদিবাসি পরিবারগুলো আশার আলো দেখেন। তারা মনে করেন যেহেতু ওই এলাকায় সবচেয়ে দুস’্য আদিবাসিরা, বিধায় লিস্টে তাদের নাম বাদ যাবেনা। কিন’ লিস্ট হবার পর তারা হতাশ হয়ে দেখলেন সেখানে ১২০টি আদিবাসি পরিবারের মধ্যে নাম রয়েছে মাত্র ৩ জনের। ফেয়ার প্রাইজের কার্ড করে চাল দেবার সময় লিস্টে থাকা ওই ৩জন আদিবাসিকেও বাদ দেয়া হয়েছে। এতে হতাশ হয়েছেন ২গ্রামের ১২০টি আদিবাসি পরিবার।

আদিবাসি পরিবারগুলো বলেন, শুধু ভোটের সময় জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতারা তাদের কাছে এসে নানান ধরনের প্রতিশ্রুতি দেয়। ভোট পার হলে কেউ তাদের খোঁজ রাখেনা। তাদের কপালে জোটেনা কোন সুযোগ সুবিধা। গরীব মানুষের জন্য দেয়া সরকারি সুযোগ সুবিধাগুলো পায় রাজনৈতিক নেতা ও জনপ্রতিনিধিদের আত্মিয়স্বজন এবং তাদের কাছের মানুষগুলো।

এই ২ গ্রামের আদিবাসি পরিবারগুলো সরজমিনে তদন্ত করে তাদের আর্থিক অবস’া বিবেচনায় নিয়ে চাল বিতরনের চুড়ান্ত তালিকায় স’ান দিতে গত বৃহস্পতিবার পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট আবেদন করেছেন।

এ ব্যাপারে হুজরীপাড়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের সদস্য মোজাহিদ হোসেন বলেন, তার এলাকায় প্রায় ৮শ’ পরিবারের বিপরিতে ফেয়ার প্রাইজের কার্ড ছিল ৭৫টি। রাজনৈতিক চাপের কারনে এবং তার এলাকায় দুস’্য পরিবারের সংখ্যা বেশি হওয়ায় অনেকেই কার্ড পাননি। তবে আগামীতে আদিবাসির বিষয়টি তিনি দেখবেন।

খবরঃ দৈনিক সোনালী সংবাদ