বৃহস্পতির উপগ্রহে পৃথিবীর সব সাগরের চেয়ে বড় সাগরের সন্ধান!

তথ্য প্রযুক্তি

সৌরজগতের সবচেয়ে বড় গ্রহ বৃহস্পতি। আর এর সবচেয়ে বড় উপগ্রহ গ্যানিমেডে। এবার গ্যানিমেডেতে মহাসাগরের অস্তিত্ব সম্পর্কে বিজ্ঞানীদের ধারণা আরো শক্ত হল। সেই সাথে মনে করা হচ্ছে, এই মহাসাগরের আকৃতি পৃথিবীর সবগুলো সাগর ও মহাসাগরের সম্মিলিত আয়তনের থেকেও বেশি।

সম্প্রতি হাবল টেলিস্কোপে ধারণকৃত কয়েকটি ছবির ভিত্তিতে গ্যানিমেডের ওই মহাসাগর সম্পর্কে এমন ধারণা করছেন বিজ্ঞানীরা।

১৯৭০ সাল থেকেই বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন, গ্যানিমেডের দুই স্তর বরফের নিচেই রয়েছে বিশাল এক মহাসাগর। সর্বশেষ হাবল টেলিস্কোপের পাঠানো ওই ছবিগুলো এই ধারণাকে আরো শক্ত ভিত্তি দিলো।

এই আবিষ্কার বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রায় একটি মাইলস্টোন উল্লেখ করে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার সায়েন্স মিশন ডিরেক্টরেটের সহকারী প্রশাসক জন গ্রান্সিফেল্ড বলেছেন, হাবল টেলিস্কোপের ২৫ বছরের অভিযানে অনেক কিছু আবিষ্কার করা সম্ভব হয়েছে। গ্যানিমেডের বরফ আস্তরণের নিচে যদি সত্যিই গভীর মহাসাগরের সন্ধান মেলে, তাহলে পৃথিবীর বাইরেও জীবনের অস্তিত্ব সম্পর্কে বিজ্ঞানের ধারণা আরো শক্ত ভিত্তি পাবে।

নাসা তাদের ব্যাখ্যায় জানায়, সৌরজগতে সবচেয়ে বড় চাঁদ হল গ্যানিমেডে। সেই সাথে একমাত্র এই উপগ্রহেরই নিজস্ব চৌম্বক ক্ষেত্র রয়েছে। এর কারণেই অরোরা’র সৃষ্টি হয়। সেই সাথে বৃহস্পতির খুব কাছে থাকায় এর চৌম্বক ক্ষেত্রের মধ্যেও রয়েছে গ্যানিমেডে। যখন বৃহস্পতির চৌম্বক ক্ষেত্র বদলায়, গ্যানিমেডের অরোরাও বদলে যায়।

ব্যাখ্যায় আরো বলা হয়, দুই চৌম্বক ক্ষেত্রের কারণে সৃষ্ট অরোরা পর্যবেক্ষণ করে গ্যানিমেডেতে বরফ আস্তরণের নিচে গভীর সাগর থাকার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।