৮৮ স্কুলছাত্রীকে পোশাক খুলে শাস্তি দিল কর্তৃপক্ষ

আন্তর্জাতিক

স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার নামে কটু শব্দ লেখার অভিযোগে দুটি ক্লাসের ৮৮ জন ছাত্রীকে জামাকাপড় খুলে নগ্ন করে শাস্তি দিল কর্তৃপক্ষ। গত ২৩ নভেম্বর ভারতের অরুণাচল রাজ্যের পাপুম পারে জেলার টানি হাপ্পা এলাকার কস্তুরেবা গান্ধী বালিকা বিদ্যালয়ে এই ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ওই স্কুলের দুই শিক্ষিকা ছাত্রীদের কাছ থেকে প্রধান শিক্ষিকার নামে কটু শব্দ লেখা একটি কাগজ দেখতে পান। যেখানে প্রধান শিক্ষিকা ও এক ছাত্রী সম্পর্কে কিছু আপত্তিকর কথা লেখা ছিল।

তবে আপত্তিকর শব্দগুলি কী লেখা ছিল সেটা জানা সম্ভব হয়নি। তারপরেই স্কুলের দুজন সহকারী শিক্ষিকা ও একজন জুনিয়র শিক্ষিকা মিলে স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণি ও সপ্তম শ্রেণির ৮৮ জন ছাত্রীকে জামা কাপড় খুলে নগ্ন হতে বাধ্য করেন। তবে ঘটনাটি জানাজানি হয় গত ২৭ নভেম্বর। এরপর ওই ছাত্রীদের তরফে বিষয়টি জানানো হয় অল সাংলি স্টুডেন্টস ইউনিয়নে।

এই ঘটনায় ওই ছাত্রীদের অভিভাবকরাও তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেন। পরে অভিভাবক ও ওই ইউনিয়নের পক্ষে স্থানীয় ইটানগর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার নামে কেন কটু শব্দ লেখা হয়েছে তা ছাত্রীদের কাছে জানতে চেয়ে জবাবদিহি চান শিক্ষিকারা। কিন্তু ছাত্রীদের কেউই মুখ খুলতে চায়নি। যে কারণেই এই চরম শাস্তি দেওয়া হয়। তবে বিষয়টির পূর্ণাঙ্গ তদন্তের ক্ষেত্রে ছাত্রীরা, ছাত্রীদের বাবা মা ও শিক্ষিকাদের সঙ্গে কথা বলা হবে।

তারপর মামলা দায়ের করা হবে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে।

এই ঘটনায় অল সাংলি স্টুডেন্টস ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট নবম টাডো জানিয়েছেন, এই রকম একটা শাস্তি দেওয়ার আগে শিক্ষিকারা ছাত্রীদের বাবা মায়ের সঙ্গে কথা বলেননি।

খবরটি প্রকাশ করেছেঃ দৈনিক সোনালী সংবাদ