রাজশাহীতে বিভিন্ন কর্মসূচিতে পালিত হচ্ছে মে দিবস

রাজশাহী

শ্রমিকদের নূন্যতম মজুরি প্রদানের দাবির মধ্য দিয়ে রোববার (০১ মে) রাজশাহীতে বিভিন্ন কর্মসূচিতে পালিত হচ্ছে মহান মে দিবস।

দিবসটি উপলক্ষে সকাল থেকেই মহানগরীতে বিভিন্ন শ্রমিক, পেশাজীবী, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শোভাযাত্রা, পথসভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে।

বেলা ১১টার দিকে মহানগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্ট থেকে শোভাযাত্রা বের করে ওয়ার্কার্স পার্টি। শোভাযাত্রাটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে নেতৃত্ব দেন ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা।

পরে মহানগর শ্রমিক লীগ ও রাজশাহী শহর সংবাদপত্র শ্রমিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন শোভাযাত্রা বের করে। শেষে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে সকাল ৮টার দিকে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তা ও কর্মচারী ইউনিয়নের উদ্যোগে বোর্ড চত্বর থেকে শোভাযাত্রা বের করা হয়। এটি মহানগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্ট হয়ে বোর্ড চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে শিক্ষা বোর্ড চত্বরে দিবসের ওপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ মহান মে দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি পৃথিবীর সব পেশার শ্রমজীবী মানুষের অসহায়ত্ব এবং চরম দারিদ্র্যতা নিয়ে জীবনযাপন করার কথা উল্লেখ করেন।

সকাল ১০টায় মহানগরীতে শোভাযাত্রা করে খেলাঘর আসর, অনুশীলন পাঠাগার, উদিচী, সমগীত, মাদল, মুক্তপাঠ ও ম্যাজিক লণ্ঠনসহ বিভিন্ন সংগঠন।

শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের হাতে হাতে ছিল শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি আদায়ের নানা রকম স্লোগান সংবলিত প্লাকার্ড। শোভাযাত্রাগুলো মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এছাড়া রাজশাহী ইমারত শ্রমিক ইউনিয়ন, বস্ত্র কর্মচারী ইউনিয়ন, জনতা ব্যাংক কর্মচারী ইউনিয়ন এবং সিপিবি মহানগরীতে পৃথক শোভাযাত্রা বের করে।

এদিকে, মে দিবস উপলক্ষে রাজশাহীর সব স্থানীয় সংবাদপত্র, অফিস-আদালতে ছুটি রয়েছে। সকাল থেকে পরিবহন সার্ভিস বন্ধ রয়েছে। হোটেল-রেস্তোরাঁও রাখা হয়েছে বন্ধ। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও সাধারণ দোকানপাট বন্ধ থাকায় মহানগরী প্রায় ফাঁকা হয়ে পড়েছে।

তবে রিকশাসহ হালকা যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

খবরঃ বাংলানিউজ