দিল্লির শাহী ফিরনিতে ৬৫ বছরের স্বাদ রাজশাহীতে

রাজশাহী

‘দিল্লির শাহী ফিরনি’ তৈরি করে দীর্ঘ ৬৫ বছরের ঐতিহ্য ধরে রেখেছে রাজশাহীর রহমানিয়া হোটেল। রমজান মাস উপলক্ষে গণকপাড়ায় অবস্থিত হোটেলটি এবারও নিয়ে এসেছে স্বাদ ও গুণে অতুলীয় ঐতিহ্যবাহী শাহী ফিরনি। প্রতিদিনের ইফতারের টেবিলে রসনাবিলাসীদের জন্য প্রতিবেশী দেশ ভারতের রাজধানীর নামে পরিচিত এ ফিরনিই সেরা আকর্ষণ।

রোজাদারদের রসনার তৃপ্তি মেটাতে যুগযুগ ধরে সমান জনপ্রিয় এ ফিরনি। এবারও তাই রাজশাহীর রোজাদারদের পছন্দের তালিকায় উপরের দিকেই রয়েছে এর অবস্থান।

রহমানিয়া হোটেলের স্বত্ত্বাধিকারী রিয়াজ আহমেদ খান জানান, আজ থেকে প্রায় ৬৫ বছর আগে ১৯৫১ সালে তার দাদা আনিসুর রহমান খান ভারত থেকে সুস্বাদু এ খাবারটি রাজশাহীতে এনে প্রচলন শুরু করেন। তখন থেকে এখন পর্যন্ত শাহী ফিরনির কদর কমেনি এতটুকুও। যুগের পর যুগ ধরে স্বাদের ঐতিহ্য বহন করে আসছেন তারা। সে সময় মূল্য ছিলো ছয় আনা। আর এখন ১৫ টাকা।

রিয়াজ আহমেদ বলেন, ভারতের রাজধানীতে নাম-ডাক থাকায় এ ফিরনির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। দুধ, পোলাওয়ের চালের গুঁড়াসহ বিভিন্ন উপাদান দিয়ে এই ফিরনি তৈরি করার পর মাটির একটি পাত্রে করে জমিয়ে রেখে পরে তা বিক্রি করা হয়। তবে আগে প্রতিদিন পাওয়া গেলেও বর্তমানে রমজান ও বিশেষ অর্ডার ছাড়া এ শাহী ফিরনি তৈরি করা হয় না। রোজাদারদের কাছে এর চাহিদাও প্রচুর।

তিনি জানান, সেরা এ আকর্ষণ ছাড়াও রমজান মাস উপলক্ষে রহমানিয়া হোটেলে ইফতারের বিশাল আয়োজন রয়েছে। ইফতারের প্রতি প্যাকেটে থাকছে- বুট, খেজুর, পিঁয়াজ‍ু, বেগুনি, আলুর চপ, জিলাপি, সামুচা, কলা, শসা, মুড়ি, কাঁচা বুট এবং নিমকপাড়া। যার মূল্য ৪৫ টাকা।

এছাড়া খাসির তেহেরি হাফপ্লেট ৬০ টাকা, চিকেন বিরিয়ানি হাফপ্লেট ১২০ টাকা, কাচ্চি ১০০ টাকা, শিক কাবাব ৪০ টাকা, কাটি কাবাব ২০ টাকা, চিকেন কাবাব ৩৫ টাকা, চিকেন টিক্কা ৩০ টাকা, চিকেন সাসলিক ৩৫ টাকা, ক্রিসপি চিকেন ৬০ টাকা, গ্রিল চিকেন ৮০-৩২০ টাকা, শামি কাবাব ৫০ টাকা, সামুচা খাসির (কিমা) ৬ টাকা, শাহী পিঁয়াজি ৫ টাকা, কোপ্তা ৫ টাকা, হালিম ৮০-১৪০ টাকা, জিলাপি ১২০ টাকা, হায়দ্রাবাদী বিরিয়ানি ১২০-২০০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে প্রতিদিন।

খবরঃ বাংলানিউজ

4 thoughts on “দিল্লির শাহী ফিরনিতে ৬৫ বছরের স্বাদ রাজশাহীতে

Comments are closed.