রাজশাহীতে চিকিৎসার নামে প্রতারণা, চিকিৎসকের দণ্ড

রাজশাহী

চিকিৎসার নামে সাধারণ রোগীদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে রাজশাহী মহানগরীতে এক চিকিৎসককে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযুক্ত ওই চিকিৎসকের ‍নাম ডা. কামরুল হুদা।

মহানগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকায় অবস্থিত মেডিসিন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়মিত রোগী দেখতেন তিনি। সোমবার (২৭ জুন)  বিকেলে সেখান থেকেই তাকে আটক করা হয়। পরে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
এছাড়া অতিরিক্ত ফি আদায়সহ নানান অনিয়মের অভিযোগে ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে আরো ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

জেলা প্রশাসন ও রাজশাহী মহানগর পুলিশ যৌথভাবে ওই অভিযান চালায়। রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র সিনিয়র সহকারী কমিশনার ইফতে খায়ের আলম জানান, এমবিবিএস ডিগ্রিধারী হলেও ওই চিকিৎসক নিজেকে নার্ভ, ব্রেন ও লিভার বিশেষজ্ঞ বলে পরিচয় দিয়ে রোগী দেখে আসছিলেন। কিন্তু তিনি তা নন। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

পরে মেডিকেল প্রাকটিস অ্যান্ড প্রাইভেট ক্লিনিক রেজি: ১৯৮২ এর ৭ ধারায় তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় তার ভিজিটিং কার্ড, ব্যানার ও ফেস্টুনসহ বিভিন্ন প্রচারপত্র জব্দ করে পুড়িয়ে দেওয়া হয়।

অভিযানে ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নানা অনিয়ম ধারা পড়ে। মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন-২০১০ এর ২৯ ধারায় ডায়াগনস্টিক সেন্টারকেও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অভিযানে অভিযুক্তদের সর্তক করা হয়েছে।

খবরঃ বাংলানিউজ

2 thoughts on “রাজশাহীতে চিকিৎসার নামে প্রতারণা, চিকিৎসকের দণ্ড

Comments are closed.